চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

হোম ভেন্যুতে এসেই হোঁচট খেল চট্টগ্রাম

বিজ্ঞাপন

চট্টগ্রাম থেকে: ঢাকা পর্বে তিন ম্যাচে দুই জয় নিয়ে বন্দরনগরীতে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স হোঁচট খেল হোম ভেন্যুতে এসেই। চট্টগ্রাম পর্বের প্রথম ম্যাচে মুশফিকুর রহিমের খুলনা টাইগার্সের কাছে ৬ উইকেটে হেরেছে মেহেদী হাসান মিরাজের দল।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের ব্যাটিং উইকেটেও বড় সংগ্রহ পায়নি চট্টগ্রাম। তাদের দেয়া ১৪৪ রানের লক্ষ্য সহজে টপকে যায় খুলনা। চোট কাটিয়ে ফেরা আন্দ্রে ফ্লেচারের ৫৮ ও মুশফিকের অপরাজিত ৪৪ রান সহজে এনে দেয় জয়।

pap-punno

৪ উইকেট হারিয়ে ৭ বল আগেই জয়ের বন্দরে নোঙর করে খুলনা। মেহেদী হাসান মিরাজ নেন দুটি উইকেট। একটি করে উইকেট নিয়েছেন শরিফুল ইসলাম ও নাসুম আহমেদ।

ঢাকা পর্বে শেষের দুটি ম্যাচ জিতে বন্দরনগরীতে পা রাখে চ্যালেঞ্জার্স। টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে কেবল ১৪৩ রান তুলতে পারে। দ্বিতীয় ওভারে এক রান করে ফেরেন ওপেনার কেনান লুইস। নাবিল সামাদের বলে ফরহাদ রেজার হাতে ধরা পড়েন।

পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ৪৬ রান তোলা চট্টগ্রাম বড় সংগ্রহের বার্তা দিয়েছিল। আফিফ হোসেনের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে ৫৭ রানের জুটি গড়েন জ্যাক উইলস। ২৮ রানে থিসারা পেরেরার বলে বোল্ড হন তিনি। এরপর কমতে থাকে রানের গতি।

Bkash May Banner

প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ সাব্বির রহমান। লঙ্কান স্পিনার সেকুগে প্রসন্নের বলে ফরহাদের ক্যাচে ৪ রানে শেষ হয় তার ইনিংস। হতাশ করেছেন অধিনায়ক মিরাজও। ৬ রানের বেশি দিতে পারেননি।

ঢাকা পর্বে শেষদিকে ব্যাটিং ঝড় তোলা বেনি হাওয়েল সুবিধা করতে পারেননি। পেরেরার বলে ৫ রান করে ফিরতি ক্যাচে সাজঘরে হাঁটা দেন।

৩৭ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় আফিফ হোসেন ধ্রুব ৪৪ রান করে ক্রিজ ছাড়েন। তার উইকেট নেন ফরহাদ রেজা। বাকি ব্যাটাররা স্লগ ওভারগুলোতে কার্যকরী না হওয়াতে খুব বড় সংগ্রহ পায়নি চট্টগ্রাম।

কামরুল ইসলাম রাব্বির করা শেষ ওভারে ১৭ রান তুলেছে চট্টগ্রাম। শেষদিকে নাঈম ইসলামের ১৯ বলে ২ চার ও এক ছক্কায় ২৫ ও শরিফুল ইসলামের ৬ বলে এক চারে ১২ রানের অপরাজিত ইনিংসে দেড়শর কাছাকাছি যেতে পারে বন্দরনগরীর দলটি।

খুলনার সফল বোলার পেরেরা, ৪ ওভারে ১৮ রানে তুলে নেন ৩ উইকেট। একটি করে উইকেট নেন রাব্বি, নাবিল, মেহেদী, প্রসন্ন ও ফরহাদ।

বিজ্ঞাপন

Bellow Post-Green View