চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হেফাজতি তাণ্ডব: জামায়াত নেতা শাহজাহান চৌধুরী গ্রেপ্তার

চট্টগ্রামের হাটহাজারিতে হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের ঘটনায় জামায়াতে ইসলামীর নেতা ও সাবেক সাংসদ শাহজাহান চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সাতকানিয়া থেকে শুক্রবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আব্দুল্লাহ আল মাসুম জানান।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, “ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে হাটহাজারিতে তিন দিন ধরে যে তাণ্ডব হয়েছে সেখানে শাহজাহান চৌধুরীর সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে।”

মার্চে স্বাধীনতার সুর্বণজয়ন্তীর দিনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতায় বিক্ষোভের সময় হাটহাজারিতে ব্যাপক তাণ্ডব চালায় কওমি মাদ্রাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের কর্মীরা।

তাণ্ডবের প্রথম দিন ২৬ মার্চ হাটহাজারি থানায় আক্রমণ করে ভাঙচুর চালানো হয়। পাশাপাশি সহকারী কমিশনারের (ভূমি) কার্যালয়, উপজেলা ভূমি অফিসে ভাঙচুর ও অগ্নি সংযোগ করা হয়। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে সেদিন চারজন নিহত হন।

সে সময় সড়কে দেয়াল তুলে ২৬ থেকে ২৮ মার্চ তিন দিন চট্টগ্রামের সাথে খাগড়াছড়ির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে রাখে হেফাজতকর্মীরা। ঢাকা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও নারায়ণগঞ্জেও সে সময় সংঘাত-সহিংসতা হয়।

এর মধ্যে পুলিশ বাদী হয়ে চারটি মামলা করে। আর ভূমি অফিসে হামলা এবং ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগের ঘটনায় দুটি মামলা হয়।

এসব মামলায় কারো নাম উল্লেখ না করে কয়েক হাজার অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিকে আসামি করা হয়।

সংঘর্ষের ঘটনার প্রায় এক মাস পর গত ২২ এপ্রিল হেফাজতে ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী ও বিএনপি নেতা মীর হেলালকে আসামি করে আলাদা তিনটি মামলা করা হয়।

নাশকতা-সহিংসতার এসব ঘটনায় হেফাজত ইসলামের বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতাকে ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম মহানগর জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির শাহজাহান চৌধুরী দলটির কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনের এমপি ছিলেন তিনি।

বিভিন্ন সময়ে নাশকতা-সহিংসতার প্রায় ২০টি মামলা রয়েছে এই জামায়াত নেতার বিরুদ্ধে। এর আগে ২০১৮ সালে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে ‘উসকানি’ দেওয়ার অভিযোগেও তিনি গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

বিজ্ঞাপন