চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হারের রেকর্ড ছুঁয়েও শেষ আটে রিয়াল

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ক্লাব ছাড়ার পর থেকেই ছন্নছাড়া রিয়াল মাদ্রিদ। শত চেষ্টা করেও যেন আর পথ খুঁজে পাচ্ছে না রিয়াল। বুধবার রাতে জুভেন্টাস জার্সিতে রোনালদো যখন ফুল ফোটালেন। একই সময় রিয়ালের সেই মলিনভাব। নিজে গোল করে জুভেন্টাসকে রেকর্ড অষ্টম কোপা ইতালিয়ার শিরোপা জেতান সিআর সেভেন। উল্টোদিকে মৌসুমের দশম হারে ২০ বছরের রেকর্ড স্পর্শ করে লস ব্লাঙ্কোসরা।

কিছুতেই ছন্দ খুঁজে পাচ্ছে না রিয়াল। এবার লেগানেসের কাছে হেরে গেছে তারা। তারপরও অবশ্য পেয়ে গেছে কোপা ডেল রের কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট। প্রথম লেগে জয়ই সম্মান বাঁচিয়েছে সান্টিয়াগো সোলারির দলের।

তবে কোপা ডেল রে থেকে বিদায় নিয়েছে রিয়ালের নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। বুধবার আরেক ম্যাচে জিরোনার বিপক্ষে ফিরতি লেগে ১০ বারের চ্যাম্পিয়নরা ৩-৩ ড্র করে। তারই পথ ধরে অ্যাওয়ে গোলে পিছিয়ে পড়ে ডিয়োগো সিমিওনের দল। গত সপ্তাহে প্রথম পর্বে জিরোনার মাঠে ১-১ ড্র করেছিল ফেভারিটরা।

বুধবার রাতে শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে রিয়ালকে ১-০ গোলে হারায় লেগানেস। কিন্তু দুই লেগ মিলিয়ে ৩-১ ব্যবধানে জিতে শেষ আটে উঠেছে স্প্যানিশ জায়ান্টরা। বার্নাব্যুতে নিজেদের মাঠের প্রথম লেগে ৩-০ গোলে জয়ই এগিয়ে দিয়েছিল তাদের।

Advertisement

বুধবার ম্যাচে অবশ্য সেরা একাদশে ছিলেন না রিয়ালের তিন তারকা। ইনজুরিতে ছিটকে গেছেন গ্যারেথ বেল, করিম বেনজেমা ও গোলকিপার থিবো কোর্তোয়া। আর এই সুযোগটাই কাজে লাগায় লেগানেস। খেলার ৩০ মিনিটে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। স্রোতের বিপরীতে ব্যবধান গড়ে দেন মার্টিন ব্রেথওয়েট (১-০)।

পিছিয়ে পড়ে আরো বেশি আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে রিয়াল। একাধিক সুযোগ পেয়েছিলেন দলের ফুটবলাররা। তবে গোলের দেখা পাননি। সৌভাগ্য বলতে হবে- প্রথম লেগে জয়ই কোপা ডেল রের ১৯বারের চ্যাম্পিয়নদের পাইয়ে দেয় শেষ আটের ছাড়পত্র।

চলতি মৌসুমে এটি রিয়ালের দশম হার। ১৯৯৮-৯৯ মৌসুমের পর সবচেয়ে বাজে মৌসুম শুরু তাদের। ওই সময় গাস হিডিস্কের অধীনে এমন দশা হয়েছিল মাদ্রিদ রাজাদের। এই মৌসুমে মোট ৩২ ম্যাচ খেলে ১০টিতেই হারল রিয়াল। তার উপর আট ম্যাচে গোলই করতে পারেননি রিয়াল ফুটবলাররা।

গত মৌসুমে মোট ৬২ ম্যাচ খেলে ৩৯টিতে জয় পেয়েছিল রিয়াল, ড্র ১৪টিতে এবং হেরেছিল ৯টিতে। এবার অর্ধেক ম্যাচ খেলেই হারের দুই অঙ্ক ছুঁয়ে ফেলেছে তারা।