চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হাঁটু গেড়ে লোক দেখানো নয়, কৃষ্ণাঙ্গদের নিয়ে দৃষ্টি পাল্টাতে হবে

পুলিশের হাতে সাবেক বাস্কেটবল খেলোয়াড় জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর প্রতিবাদে জন্ম নিয়েছে সামাজিক আন্দোলন ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার্স’। বিশ্বজুড়ে আন্দোলনের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করে নিজের হাঁটু গেড়ে একাত্মতা দেখাচ্ছেন লাখ লাখ মানুষ। খেলার মাঠে কী সাদা, কী কালো- সবাই হাঁটু গেড়ে নিজের সমর্থন জানাচ্ছেন।

এই হাঁটু গেড়ে বসার প্রচলনটাকে কেবলই লোক দেখানো বলে মনে করছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ অলরাউন্ডার কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। ক্যারিবীয় ক্রিকেটারের মতে, একটা সময় সবাই আবার আগের মতো নিয়মে ফিরে যাবে, রয়ে যাবে বৈষম্য। তাই সময় থাকতে বৈষম্য দূর করার প্রতি মনোযোগ দিতে বলছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

খেলার মাঠে হাঁটু গেড়ে বসাটা এখন একপ্রকার ট্রেন্ডই যেন হয়ে গেছে। তিনমাস বিরতি থাকার পর যখন আবারও মাঠে ফিরেছে ইউরোপের ফুটবল, অনুশীলন কিংবা ম্যাচের আগে এভাবে বসে নিজের সমর্থন দেখিয়ে চলেছেন ফুটবলাররা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে জার্সিতেও উঠে এসেছে ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার।

বিজ্ঞাপন

একই লেখা খুদিত থাকবে ৮ জুলাই থেকে সাউদাম্পটনে শুরু হতে যাওয়া ইংল্যান্ড-উইন্ডিজ টেস্টের জার্সিতেও। তা দেখে বিবিসিকে ব্র্যাথওয়েট বলছেন, শুধু জার্সি কিংবা লোক দেখানো নয়, পরিবর্তন আসতে হবে সমাজে। পাল্টাতে হবে দৃষ্টিভঙ্গি।

বিজ্ঞাপন

‘আমার মতে এটি কেবল লোক দেখানো- তাতে মানুষের মনের ক্ষোভ প্রশমিত হয় মাত্র।’

‘কেন সবাই কোনো লম্বা দাড়িওয়ালা মানুষকে বিমানে কিংবা অন্য কোথাও দেখলে মনে করে তিনি সন্ত্রাসী? কোনো কালো ব্যক্তিকে সুপারমার্কেটে দেখলেই ভাবা শুরু হয়ে যায় যে চোর, এরপর তার পেছনে নিরাপত্তাকর্মীদের লাগিয়ে দেয়া হয়।’

‘এখানেই আলোচনার বিষয়, আমরা হাঁটু গেড়ে না বসে কীভাবে আমাদের চিন্তা ভাবনা আমূলে পাল্টাবো সেটা নিয়েই আলোচনা করতে হবে।’

কৃষ্ণাঙ্গরা সমাজে কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা জফরা আর্চারকে দিয়েই বুঝিয়েছেন ব্র্যাথওয়েট। বার্বাডোজে জন্ম নেয়া আর্চার কৃষ্ণাঙ্গ হয়েও ২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সুপারওভার করেছিলেন। বিশ্বকাপটাও জিতেছিল ইংল্যান্ড। আর্চারের কীর্তির ফলে ভবিষ্যতে সাদা চামড়ার ইংলিশদের দলে আরও কৃষ্ণাঙ্গর সুযোগ হবে বলেই মনে করেন ব্র্যাথ।

‘অনেক গণমাধ্যমই ইংল্যান্ডে কৃষ্ণাঙ্গদের অভিবাসন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। একজন কালো খেলোয়াড়ই কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে সেই সমস্ত অভিযোগ মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিয়েছে এবং ঘরে শিরোপা এনে দিয়েছে। তার সাফল্য ভবিষ্যতে আরেকজন জফরা আর্চারের জন্য রাস্তা পরিষ্কার করে দেবে। আর সে করবে আরেকজন জফরা আর্চারের জন্য।’