চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হাঁটু গেড়ে মাটিতে বসে ট্রুডোর সংহতি প্রকাশ

যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপােলিসে পুলিশের হাতে নিরস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গের মৃত্যুর ঘটনার বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে কানাডাতেও। দেশটির বিভিন্ন শহরে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হচ্ছে।

কানাডার রাজধানী অটোয়ায় পার্লামেন্ট হিলেও সমবেত হয় বিক্ষোভকারীরা। সেই বিক্ষোভে কালো মাস্ক পরে হাজির হন প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। মাটিতে হাঁটু গেড়ে বসে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

এই সময় বিক্ষোভকারীরা ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ বলে শ্লোগান দিতে শুরু করে। জাস্টিন ট্রুডো হাততালি দিয়ে সেই শ্লোগানের প্রতি সমর্থন জানান।

একজন বক্তা প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, হয় তুমি বৈষম্যের বিপক্ষের লোক, না হয় তুমি বর্ণবাদী। এই দুইয়ের মাঝখানে কোনো অবস্থান নেই। জাস্টিন ট্রুডো- এই বক্তব্যেও হাততালি দিয়ে সমর্থন দেন।

বিজ্ঞাপন

ইতিমধ্যে কানাডার ক্যালগেরিতে ডাউনটাউন এর সামনে প্রায় এক হাজার বিক্ষোভকারী বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। ভেঙ্কুভারে আর্ট গ্যালারির সামনে বিক্ষোভকারীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। প্ল্যাকার্ড ফেস্টুনে লেখা ছিল ‘নো জাস্টিস নো পিস’। মন্ট্রিয়লে বিক্ষোভ প্রদর্শন করায় গত রোববার রাতে ১১জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গত ২৫ মে মিনিয়াপোলিসে পুলিশের হেফাজতে থাকার সময় মারা যান ৪৬ বছর বয়সী আফ্রিকান আমেরিকান নাগরিক জর্জ ফ্লয়েড।

৪৪ বছর বয়সী শ্বেতাঙ্গ সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চাওভিনকে তার মৃত্যুর জন্য অভিযুক্ত করা হয়েছে।

অনলাইনে ভাইরাল হওয়া ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় যে, বেশ কয়েক মিনিট ধরে ফ্লয়েডের ঘাড়ের ওপর হাঁটু গেড়ে বসে থাকেন চাওভিন। ফ্লয়েড বারবারই বলছিলেন, তিনি শ্বাস নিতে পারছেন না।