চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হল মালিকদের নতুন অভিজ্ঞতা

স্বাস্থ্যবিধি মেনে গত ১৫ অক্টোবর থেকে খুলেছে ভারতের সকল রাজ্যের প্রেক্ষাগৃহগুলো। এ বিষয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশিত নিয়ম অনুযায়ী আপাতত নিজেদের কার্জক্রম চালাচ্ছেন হল কর্তৃপক্ষরা। প্রায় সাত মাস বন্ধ থাকার পর প্রেক্ষাগৃহের নতুন শুরু নিয়ে কেমন অভিজ্ঞতা হলো হল মালিকদের?

প্রেক্ষাগৃহগুলো খোলার পূর্বেই সিদ্ধান্ত এসেছিল দর্শকদের সুরক্ষার কথা ভেবে আপাতত হলে ৫০ শতাংশ দর্শক সিনেমা উপভোগ করতে পারবেন। কারণ সবাইকেই দূরত্ব বজায় রেখে আসনে বসানো হবে। সেক্ষেত্রে মাঝের ১ থেকে ২টি আসন খালি রেখে বসানো হবে। তবে এ নিয়ম কতদিন কার্যকরী থাকবে তা নিয়ে এখনো কোন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসেনি।

বিজ্ঞাপন

এদিকে ৫০ শতাংশ দর্শক নিয়ে প্রেক্ষাগৃহ পরিচালনার ব্যাপারে হল কর্তৃপক্ষের নানা মত নিয়ে তৈরী হয়েছে তর্ক-বিতর্ক। অনেকে মনে করছেন, ৫০ ভাগ দর্শক নিয়ে হল চালিয়ে গেলে ব্যবসায় ক্ষতির আশঙ্কা।

সেই সাথে তারকাদের তরফ থেকেও করোনা কালে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পাওয়া সিনেমাগুলোকে বড় পর্দায় মুক্তি দেওয়ার ব্যপারে অনুরোধ আসছে। কেননা হল মালিকদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পাওয়া সিনেমাগুলো তারা থিয়েটারে মুক্তি দেবেন না। শুধু তাই নয় প্রেক্ষাগৃহগুলো খোলার শুরুতেই নতুন ছবি মুক্তির ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন হল কর্তৃপক্ষরা। কারণ শুরুতেই রিস্ক নিতে চান না হল হল মালিক এবং সিনেমার প্রযোজকরা।

তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হল কার্যক্রম চালনার নির্দেশনা থাকলেও পৃষ্ঠপোষকদের মধ্যে করোনা নিয়ে বর্তমানে তেমন আতঙ্ক নেই কোনো পক্ষের মধ্যে।

এ বিষয়ে আইএনওক্সের চিফ প্রোগ্রামিং অফিসার রাজিন্দর সিং জায়ালাও জানান, আমরা এখন পর্যন্ত যে কয়টি হল খুলেছি, সেগুলোর সব গুলোতেই আমরা আমাদের প্রত্যাশার চেয়েও উচ্চ পদক্ষেপ নিয়েছি। রাজকোটের একটি হলে আমরা ‘হাউজফুল’ নামক সিনেমাটি স্ক্রিনিং করেছি। সেখানে প্রচুর দর্শক হাজির হয়েছে। শুধু তাই নয় দর্শকদের ভেতর তেমন আতঙ্কও লক্ষ্য করা যায়নি।

ইতোমধ্যে ‘তানহাজি-দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’, ‘থাপ্পড়’, ‘মালাং’, ‘শুভ মঙ্গল জ্যায়াদা সাবধান’, ‘ওয়ার’ এবং ‘কেদারনাথ’ এর মত চলচ্চিত্রগুলো মুক্তি দেওয়া হয়েছে ভারতীয় প্রেক্ষাগৃহ গুলোতে। তবে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ‘সূর্যবংশী’, ‘৮৩’ সহ বলিউডের আরও ৮-৯টি ছবি কবে মুক্তি পাবে তা নিয়ে চূড়ান্ত কোন সিদ্ধান্ত আসেনি।