চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সড়ক দুর্ঘটনায় আহতের স্বাস্থ্যসেবা নীতিমালার গেজেট প্রকাশের নির্দেশ

“সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তির জরুরি স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণ ও সহায়তাকারীর সুরক্ষা প্রদান নীতিমালা-২০১৮” কে গেজেট আকারে প্রকাশ করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি ফরিদ আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এই রায় দেন।

আজকের এই রায়ের অনুলিপি পাওয়ার দুই মাসের মধ্যে গেজেট করতে স্বাস্থ্যসচিবকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আজ আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী রাশনা ইমাম, আনিতা গাজী ইসলাম ও শারমিন আক্তার। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী জিনাত হক।

আইনজীবী রাশনা ইমাম চ্যানেল আই অনলাইকে বলেন, এ সংক্রান্ত নতুন কোন আইন হওয়ার আগ পর্যন্ত গেজেট আকারে প্রকাশিত এই নীতিমালাই আইন হিশেবে বিবেচিত হবে।

বিজ্ঞাপন

জরুরি চিকিৎসাসেবা দিতে বিভিন্ন হাসপাতালের অস্বীকৃতি জানানোর পরিপ্রেক্ষিতে মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট) ও সৈয়দ সাইফুদ্দিন কামাল নামের এক ব্যক্তি জনস্বার্থে একটি রিট করেন।

সে রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট গুরুতর আহত ব্যক্তিদের জরুরি চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য দেশের সব হাসপাতালকে আদেশ দিয়ে রুল জারি করেন।

ওই আদেশে, জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা সংক্রান্ত কর্মপরিকল্পনা ২০১৪-১৬ অনুসারে রাষ্ট্রের সব হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে জরুরি চিকিৎসাসেবার ক্ষেত্রে কী ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, সে বিষয়ে একটি প্রতিবেদন আদালতে জমা দিতে বলা হয় এবং জরুরি চিকিৎসাসেবা প্রদান এবং চিকিৎসা পেতে বাধা পেলে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি কোথায় অভিযোগ করবেন সে বিষয়ে নীতিমালা তৈরি করার নির্দেশ দেন আদালত।

স্বাস্থ্য এবং পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের প্রতি এ নির্দেশ দেওয়া হয়। সেই সাথে সড়ক দুর্ঘটনায় মারাত্মকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত ব্যক্তির জরুরি চিকিৎসাসেবা কেন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে ওইসময় রুলও জারি করেন আদালত।

এরপর হাইকোর্টের এই আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে “সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তির জরুরি স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণ ও সহায়তাকারীর সুরক্ষা প্রদান নীতিমালা-২০১৮” প্রনয়ণ করে সরকার।

এ নীতিমালাকেই গেজেট আকারে ২ মাসের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ দিয়ে রায় দিলেন হাইকোর্ট।

বিজ্ঞাপন