চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক ডিজিকে দুদকে তলব

মাস্ক-পিপিই কেলেঙ্কারি ও রিজেন্ট হাসপাতালের অনিয়ম অনুসন্ধানে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক ডিজি আবুল কালাম আজাদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে পৃথক দুইটি অভিযোগ অনুসন্ধানে তার বক্তব্য নেওয়া জন্য তলব করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক (জনসংযোগ কর্মকর্তা) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য বিষয়টি নিশ্চিত করে চ্যানেল আই অনলাইনকে জানান, তলবি চিঠিতে তাকে আগামী ১২ ও ১৩ আগস্ট হাজির হতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

দুদক জানায়, করোনা পরিস্থিতিতে মাস্ক, গ্লাভস, পিপিইসহ বিভিন্ন সুরক্ষা সামগ্রী কেনাকাটা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। প্রথমে এন-৯৫ মাস্ক কেলেঙ্কারি নিয়ে দুর্নীতির বিষয়টি আলোচনায় আসে। এন-৯৫ মাস্কের মোড়কে বিভিন্ন হাসপাতালে সাধারণ মাস্ক সরবরাহ করা হয়েছিলো। রিজেন্ট হাসপাতালকে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য যারা অনুমতি দিয়েছেন, যারা স্বাক্ষর করেছেন, যাকেই দরকার তাকেই জিজ্ঞাসাবাদ করবে দুদক।

গত ২১ জুলাই স্বাস্থ্যখাতের অব্যবস্থাপনা আর অনিয়মের তুমুল সমালোচনার মধ্যে পদত্যাগ করেন সাবেক ডিজি আবুল কালাম আজাদ। এরপর ২৩ জুলাই তার স্থলাভিষিক্ত হন অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম।

দুদক সূত্র জানিয়েছে, কমিশনের অনুসন্ধানে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সঙ্গে রিজেন্ট হাসপাতালের যোগসাজশের একাধিক ক্লু পাওয়া যাচ্ছে। এর ভিত্তিতে প্রাথমিকভাবে অনুসন্ধান টিম মনে করছে, অধিদফতরের বিভিন্ন পর্যায়ের সহযোগিতা ছাড়া রিজেন্টের এক সাহেদের পক্ষে এককভাবে দুর্নীতির এতটা চূড়ায় যাওয়া সম্ভব নয়। তাই এ বিষয়ে আরও তথ্য সংগ্রহ ও প্রাপ্ত তথ্য যাচাই-বাছাইয়ের জন্য ডিজি ও অতিরিক্ত মহাপরিচালকসহ স্বাস্থ্য অধিদফতরের কয়েকজনকে তলব করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তবে সাহেদ গ্রেফতার হওয়ায় তাকে জেলগেটে কিংবা দুদকে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদ করবে অনুসন্ধান টিম।

এর আগে করোনার চিকিৎসার দায়িত্ব দিয়ে ২১ মার্চ রাজধানীর মহাখালীতে রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করে স্বাস্থ্য অধিদফতর। স্বাস্থ্য অধিদফতরে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক এবং স্বাস্থ্যের ডিজি আবুল কালাম আজাদসহ একাধিক কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।