চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ধর্মীয় মতে ‘স্ত্রী পেটানোর’ ভিডিও বানিয়ে সমালোচনার ঝড়

ইউটিউবে অনেক ধরণের টিউটোরিয়াল দেখা যায়। কিন্তু কাতারের এক সমাজবিজ্ঞানী স্ত্রীকে কিভাবে পেটাতে হয়, তার উপরেই একটা টিউটোরিয়াল বানিয়ে ফেলেছেন। আর এই বর্বরতার কারণে বিশ্বব্যাপী সমালোচনার ঝড় বইছে এখন।  

বিজ্ঞাপন

আল আজিজ আল খাজরা নামের ব্যক্তি প্রথমেই বলতে চেয়েছে, মুসলিম একজন ব্যক্তি কিভাবে তার স্ত্রীর গায়ে হাত তুলবেন তার একটা নির্দেশিকা। মার দেখে যেন স্ত্রী মনে করেন ,’সে একজন সত্যিকারের পুরুষ’। তবে ভিডিওতে কোন নারীকে না রেখে আজিজ এক তরুণ ছেলেকে রেখেছে।

ইসলামী আইনে কিভাবে স্ত্রীর গায়ে হাত তোলা যায়, তার ভিডিও আল আজিজ তার ইউটিউব চ্যানেল ‘আল মোজতামাতে’ আপলোড করে।

ভিডিওতে প্রথমেই আজিজ বলছে, অনেকে স্ত্রী গায়ে হাত তোলার ক্ষেত্রে মুখে চর-থাপ্পড় মারে, এটা একদম ঠিক না। ইসলামী নিয়মে মুখে চর-থাপ্পড় মারা, মাথায় আঘাত করা এবং নাকে জোরে চাপ দিয়ে নিঃশ্বাস বন্ধ করা একদম মানা।

আজিজের শর্ট ভিডিওটির মধ্যে দেখানো হয়েছে, ইসলামের নিয়মে স্ত্রীকে একদম ব্যথা ছাড়া মারতে হবে, যাতে স্ত্রী স্বামীর শক্তি উপলব্ধি করতে পারে।

ভিডিওটির আরেক অংশে বলা হচ্ছে, যদি স্ত্রীর গায়ে হাত তুলতে হয়, তাহলে তার কাঁধ জোরে চেপে ধরে ঝাঁকি মেরে বলতে পারেন, তোমাকে আমি বাড়ি ছাড়তে বলিনি! তোমাকে কতবার বলব!

বিজ্ঞাপন

বিবাহিত পুরুষের উদ্দেশ্যে আজিজ বলেন, যদি কারো জানতেই হয় স্ত্রীর গায়ে কিভাবে হাত তুলতে হয়, তাহলে তারা ভিডিওটি দেখতে পারেন। তবে স্ত্রীর গায়ে হাত তোলা প্রতিদিন একদমই প্রয়োজন নেই।

‘প্রথমে, আমাদের বুঝতে হবে স্বামী একটা পরিবারের নেতা। একটি নেতা যেমন একটি কোম্পানি ব্যবস্থাপক মত কাজ করে সেও তেমনি।

তাই ঘরের নেতা অর্থাৎ একজন স্বামীই সিদ্ধান্ত নিবে কিভাবে শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে স্ত্রী সংসার করবে এবং চলবে।

কট্টর ইসলামপন্থী দেশ হিসেবে কাতারে নারী স্বাধীনতার অবস্থা খুবই ভয়াবহ।

Bellow Post-Green View