চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

স্কুল পড়ুয়া ভাইবোনের আবেদনে বন্ধ হলো মদের দোকান

ভারতের তামিলনাড়ুর দুই স্কুল শিক্ষার্থীর আবেদনের ফলে একটি মদের দোকান বন্ধ করে দিয়েছেন সেখানকার জেলা কালেকটর। ওই দুই শিক্ষার্থীর স্কুলটি তামিলনাড়ুর আরিযালুর জেলার। স্কুল শিক্ষার্থী দুই ভাই-বোন মূখ্যমন্ত্রী এমকে স্টালিন এর কাছে রাজ্যের সকল মদের দোকান বন্ধেরও আবেদন জানিয়েছে।

চতুর্থ এবং ষষ্ঠ শ্রেনীতে পড়া দুই ভাই-বোন এর স্কুল খোলার কথা রয়েছে নভেম্বরে। শিশুদের নিরাপত্তা এবং সামাজিক বিশৃংখলার কথা বিবেচনায় রেখে দুই শিক্ষার্থী স্কুল খোলার আগেই মদের দোকান সরিয়ে নেয়ার আবেদন জানায়।

ভারতের এনডিটিভির কাছে তারা বলেছে, লোকজন মদ খেয়ে দোকানের সামনেই আড্ডা দেয়, গালিগালাজ করে। এসব দেখা ভীতিকর। কোন কোন পরিবারের বাবা মদের টাকা জোগাড় করতে বাচ্চাদের কাজে লাগিয়ে দেয় অথবা ভিক্ষা করতে পাঠায়। মদের দোকান বন্ধ করে দিয়ে এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়ানো যাবে বলে শিক্ষার্থীরা মনে করে।

বিজ্ঞাপন

২০১৫ সালে মাদ্রাজ হাইকোর্ট এক আদেশে বলেন, কোন স্কুলের একশ’ মিটার এর মধ্যে মদের দোকান চালু করা যাবে না। কিন্তু উচ্চ আদালতের এই আদেশ প্রতিনিয়ত লঙ্ঘন করা হয়। তবে যে মদের দোকানটি বন্ধ করার আবেদন জানানো হয়েছে সেটি স্কুলের একশ’ মিটার এলাকার বাইরে। তারপরও শিক্ষার্থীদের আবেদনে সাড়া দিয়ে জেলা কালেকটর মদে দোকানটি সরিয়ে নেয়ার ব্যবস্থা নিয়েছেন।

মদের দোকান বন্ধের আবেদন জানানো শিক্ষার্থীদের মা-বাবা একটি বইয়ের দোকান পরিচালনা করেন। কালেকটরকে চিঠি লেখার জন্য জেলাজুড়ে সাধারণ মানুষ শিশুদের প্রশংসা করছেন।

চেন্নাইয়ে এক সংস্কৃতিকর্মী প্রানিথা টিমোথি বলেছেন, এই শিশুরাই দেশের ভবিষ্যৎ নেতা। দায়িত্বশীলতা কী এবং সমাজের পরিবর্তন আনতে কীভাবে সাহস দেখাতে হয় সেটা তারা দেখিয়ে দিয়েছে।

ওই দুই শিক্ষার্থীর উদ্যোগ দেখে জেলার অন্য শিক্ষার্থীদের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। আশা করা হচ্ছে এই একটি পদক্ষেপের মাধ্যমে অন্যান্য স্কুলের নিকটবর্তী মদের দোকানগুলোও বন্ধ করা হবে।

বিজ্ঞাপন