চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

স্করসিসের প্রথম ওয়েস্টার্ন ‘কিলারস অব দ্য ফ্লাওয়ার মুন’

মার্টিন স্করসিস জানিয়েছেন, ‘কিলার্স অব দ্য ফায়ার মুন’ হতে যাচ্ছে তার ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়েস্টার্ন ঘরানার ছবি। এই ছবির মূল চরিত্রে দেখা যাবে রবার্ট ডি নিরো এবং লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওকে।

ডেভিড গ্রানের বই কিলারস অব দ্য ফ্লাওয়ার মুন: দ্য ওসেজ মার্ডারস অ্যান্ড দ্য বার্থ অব দ্য এফবিআই অবলম্বনে তৈরি হতে চলেছে এই ছবি।

বিজ্ঞাপন

‘কিলারস অব দ্য ফ্লাওয়ার মুন’ ছবির গল্প রচিত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ওকলাহোমা অঞ্চলের ‘ওসেজ’ জাতিকে কেন্দ্র করে। সে সময় মাথাপিছু আয়ের হিসেবে সবচেয়ে ধনী ছিল ‘ওসেজ’ জাতি। কিন্তু যখন তাদের ভূখণ্ডে প্রাকৃতিক সম্পদের খনি আবিষ্কৃত হতে থাকে, তখন থেকেই সেখানে হত্যা ও অরাজকতা বাড়তে শুরু করে। এর তদন্তের ভার নেয় এফবিআই। তদন্তে বেরিয়ে আসে ভয়ংকর সব ষড়যন্ত্রের ছক। ‘কিলারস অফ দ্য ফ্লাওয়ার মুন’ ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন এরিক লোথ।

আমরা মনে করছি এটা ওয়েস্টার্ন। ওকলাহোমার ১৯২১-১৯২২ সালের ঘটনা। বেশ কয়েকজন কাউবয় ছিলেন যাদের গাড়ি ছিল, ঘোড়াও ছিল। ছবিটি মূলত ওসেজ জাতিকে নিয়ে। তাদের নিয়ে সাদাদের কোনো মাথাব্যথা ছিল না। কিন্তু যখন তেলের খনি পাওয়া যায়, তখন দশ বছরের মধ্যে তারা পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী হয়ে যায়। এরপর ইউরোপিয়ানদের নজরে আসে তাঁরা এবং সব হারায়। সব কিছু আন্ডারওয়ার্ল্ডের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়।’

৭৭ বছর বয়সী এই নির্মাতা জানান, মূল চরিত্রে দেখা যাবে লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওকে। ওসেজ হিলের রাজা উইলিয়াম হালের চরিত্রে দেখা যাবে রবার্ট ডি নিরোকে। ডিক্যাপ্রিও এবং ডি নিরো ছাড়াও কয়েকজন নেটিভ আমেরিকান অভিনেতা থাকবেন তার ছবিতে।

গত শতকের চল্লিশ থেকে ষাটের দশকে হলিউডে সবচেয়ে জনপ্রিয় ঘরানার সিনেমা ছিল ওয়েস্টার্ন। আমেরিকান ফিল্ম ইন্সটিটিউটের সংজ্ঞানুযায়ী ওয়েস্টার্ন হচ্ছে আমেরিকান পশ্চিমের প্রেক্ষাপটে নির্মিত সেসব সিনেমা যেগুলো নিউ ফ্রন্টিয়ার এর স্পিরিট, সংগ্রাম ও প্রস্থানকে ধারণ করে।

২০২১ সালে মুক্তি পাবে স্করসিসের ‘কিলারস অব দ্য ফ্লাওয়ার মুন’ ছবিটি।