চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সোমবার থেকে অস্ট্রিয়ায় পূর্ণাঙ্গ লকডাউন ঘোষণা

করোনা পরিস্থিতির অবনতির মুখে সোমবার থেকে সম্পূর্ণ লকডাউনে যাচ্ছে অস্ট্রিয়া। হঠাৎই করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার কারণে অস্ট্রিয়া সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এর আগে কেবল পূর্ণ ডোজ ভ্যাকসিন নেননি এমন ব্যক্তিদের লকডাউনের আওতায় আনার কথা থাকলেও সরকার সারাদেশেই লকডাউনের কথা ঘোষণা করেছে। অস্ট্রিয়ার চ্যান্সেলর আলেকজান্ডার শ্যালেনবার্গ জানিয়েছেন: লকডাউন সর্বোচ্চ ২০ দিন স্থায়ী হবে। একইসাথে আগামী বছরের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে অস্ট্রিয়ায় করোনার টিকাগ্রহণ বাধ্যতামূলক করেছে দেশটির সরকার। চ্যান্সেলর শ্যালেনবার্গ বলেন, করোনার পঞ্চম ঢেউ আসুক তা অস্ট্রিয়া চায় না।

শীতের এই সময়ে ইউরোপে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার ঝুঁকি রয়েছে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

আন্তর্জাতিক জরিপকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য মতে, শনিবার  সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫১ লাখ ৫৫ হাজার ২১৬ জন। আর এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৫ কোটি ৫৯ লাখ ৩৫ হাজার ২৪১ জন। সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়েছেন ২৩ কোটি ১৯ লাখ ৭৪ হাজার ৮৯০ জন।

বিজ্ঞাপন

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭ হাজার ৪৬১ জন। এর আগের দিন করোনায় মারা ৮ হাজার ৩৬৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫ লাখ ৯২ হাজার ১২০ জনের। এর আগের দিন করোনা শনাক্ত হয় হয়েছে হয়েছে ৬ লাখ ২১ হাজার ১৮৭ জনের।

করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪ কোটি ৮৫ লাখ ২১ হাজার ৫৯৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৭ লাখ ৯১ হাজার ৯৮ জন মানুষ মারা গেছেন।

এছাড়া, ভারতে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৯৫ হাজার ৫০৬ জনের। মারা গেছেন ৪ লাখ ৬৫ হাজার ৮২ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে।

বিজ্ঞাপন