চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সেলফি জমানায় সই শিকারিদের কবলে অভিনেতা শামীম!

‘ম্যাঙ্গো স্কোয়াড’ নামে ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে যাত্রা। চ্যানেলটির মাধ্যমে তুমুল জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন শামীম হাসান সরকার। তারই সূত্র ধরে অভিনয় শুরু করেন। বৈচিত্রময় আর সাবলীল অভিনয়ের জন্য সাধারণ দর্শকের মধ্যে দ্রুতই দর্শকপ্রিয় হয়ে উঠেন।

এই সময়ের বাংলা নাটকে অন্যতম জনপ্রিয় মুখ শামীম হাসান। দেশ জুড়ে আছে অসংখ্য ভক্তকূল। যেখানেই যান, ভক্তদের আবদারে হন সেলফিবন্দি। যে কোনো অনুষ্ঠানে তাকে ঘিরে চলে সেলফি শিকারিদের জটলা! কিন্তু শুক্রবার দেখা গেল তার ব্যতিক্রম!

Reneta June

এদিন একুশে বইমেলায় আসেন এই অভিনেতা। স্বভাবতই ভক্ত শ্রেণির একটি বিরাট অংশ তাকে ঘিরে। কিন্তু এদিন সেলফির চেয়ে তার সইয়ের জন্যই ছুটতে দেখা গেছে ভক্তদের! কী কারণ?

বিজ্ঞাপন

আসলে শুক্রবার প্রকাশিত হয়েছে অভিনেতা শামীম হাসান সরকারের প্রথম কবিতার বই ‘আরবান কবি’। এই বইয়ের মোড়ক উন্মোচনে প্রকাশনা সংস্থা উড়কিতে এসেছিলেন তিনি। উৎসুক ভক্ত অনুরাগীরা প্রিয় অভিনেতার সই সহ বইটি নিতে ভিড় করেন স্টলের সামনে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মজা করে ছোট ছোট কবিতা লিখতেন শামীম হাসান সরকার। তার লেখা ‘হাইকো’ ধাঁচের ৪-৬ লাইনের এমন ১৬০টি কবিতা বই আকারে এবার প্রকাশ হলো অমর একুশে বইমেলায়।

শামীম জানান, গত সাড়ে ৩ বছর ধরে তিনি এগুলো লিখেছেন। সেই সব কবিতাগুলো নিয়েই বইয়ের নাম রেখেছেন ‘আরবান কবি’।

শুক্রবার থেকে মেলায় ৫৭৮ নম্বর স্টল উড়কিতে বইটি পাওয়া যাচ্ছে। পাশাপাশি রকমারি ডটকমকেও অনলাইন অর্ডারের মাধ্যমে পাওয়া যাচ্ছে শামীমের ‘আরবান কবি’।

ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজে পড়ার সময় লেখালিখি করতেন শামীম হাসান সরকার। পরে মিলিটারি ইন্সটিটিউট অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি (এমআইএসটি) তে অধ্যয়নরত অবস্থায়ও বিভিন্ন ম্যাগাজিনে লিখতেন তিনি। তবে লেখক হিসেবে অফিসিয়ালি বই প্রকাশ করবেন কখনও ভাবেননি তিনি।

চ্যানেল আই অনলাইনকে শামীম হাসান সরকার বলেন, ফেসবুকে ‘আরবান কবি’ নামে কয়েক লাইনে কবিতা লিখতাম। কোভিড, প্রেম, বন্ধুত্ব, প্রতারণাসহ জীবনে যা যা ঘটে অল্প কথায় সহজ শব্দে এসব কবিতা তরুণ প্রজন্ম খুব পছন্দ করতে থাকে। এ যুগের কবি বলেই ডিজিটালি নামটা ‘আরবান কবি’ রেখেছেন বলে জানালেন শামীম। তিনি বলেন, আমি শুধু মনের ভাষা প্রকাশ করতাম। সেগুলো পড়ে সবাই খুব সহজেই নিজেদের সম্পৃক্ত করতে পারে।

মানুষকে আনন্দ দিতে ‘আরবান কবি’ হিসেবে ফেসবুকে লিখতেন শামীম। বলেন, ৫-৭ টা কবিতা পড়লেই যে কেউ হাসবে। যেহেতু মানুষকে হাসিখুশি রাখতে পছন্দ করি তাই বই আকারে এগুলো সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে চেয়েছি। সে চিন্তা থেকে বইটি প্রকাশ করেছি। আগামীতেও লেখালিখির কাজ প্রসারিত করতে চান শামীম। প্রথম বই প্রকাশের মাধ্যমে কমার্শিয়াল ভ্যালুর চেয়ে নিজের স্বপ্নটাকে বাস্তবায়ন করলেন বলে জানালেন তিনি।

শামীমের কথা, কদিন আগে আমার একটা অপারেশন হয়েছে। হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরে নিজেকে আনন্দিত রাখার জন্য বই প্রকাশের উদ্যোগ নেই। পরে প্রকাশ করবো কিনা কনফিউজড ছিলাম। কিন্তু পাবলিশার্স বন্ধু ইফতেখার ইনান উৎসাহিত করেছে।

‘আরবান কবি’র কবিতা প্রকাশের মাধ্যমে নিজেকে ‘টেস্ট ট্রায়াল’ করলেন উল্লেখ করে শামীম বলেন, কবিতার বাইরে অন্যকিছু লেখার ইচ্ছে আছে। ওইসব লেখার মাধ্যমে ভবিষ্যতে হয়তো লেখক হিসেবে নিজের ম্যাচিউরিটি আরো বোঝাতে পারবো।

শামীম তার প্রথম বই ‘আরবান কবি’ উৎসর্গ করেছেন তার সকল পাঠক পাঠিকা ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের। তবে বইটি লেখার নেপথ্যে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন তার বাবা
অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. গোলাম হোসেন সরকারকে।