চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘সেক্স মিউজিয়াম’র ছবি পোস্ট করায় বিচারের মুখোমুখি তুর্কি তরুণী

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নেদারল্যান্ডের আমাস্টারডাম সেক্স মিউজিয়ামের কিছু ছবি পোস্ট করায় নিজ দেশে আদালতের মুখোমুখি হয়েছিলেন একজন তুর্কি তরুণী, যার ইনস্টগ্রামে ফলোয়ারের সংখ্যা ৬ লক্ষাধিক।

বিবিসিকে মার্ভে তাসকিন নামের ওই তরুণী বলেন, আমস্টারডামের বিশ্ব খ্যাত ’সেক্স মিউজিয়ামের ভেতরের কিছু ছবি আমি ‘মজা করার জন্য পোস্ট করেছিলাম। কিন্তু গ্রীষ্মকালীন ছুটিতে দেশে ফিরে আমি বিচারের মুখোমুখি হয়েছি। আমাকে কয়েকবার আদালতে যেতে হয়। পরে পোস্ট মুছে ফেলার পর নিষ্কৃতি পেয়েছি।

২৩ বছর বয়সী তাসকিন গত বছরের জানুয়ারিতে আমাস্টারডামের সেক্স মিউজিয়াম থেকে কেনা কিছু যৌন খেলনার ছবি পোস্ট করেছিলেন। কয়েক মাস পরে তুরস্কে ফিরলে অভিযুক্ত করা হয়।

দেশটিতে ‘অশ্লীল বিষয়বস্তু’ ধারার কোনো কিছু ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার বা পোস্ট করলে ২২৬ ধারায় দণ্ডনীয় হিসেবে গণ্য করা হয়। তাই ওই তুর্কি তরুণীকে অশ্লীলতার অভিযোগে আদালতে ডাকা হয়েছে।

এই আইন অনুযায়ী, সামাজিক মাধ্যমে কোনো ধরনের অশ্লীল উপাদান প্রকাশ করলে তাকে জরিমানা বা তিন বছরের কারাদণ্ড ভোগ করতে হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

তবে তাসকিন বলছেন, ‘আমার উদ্দেশ্য ছিলো মজারছলে সামাজিক মাধ্যমে ছবি প্রকাশ করা। এই ছবিগুলোকে কোনো ধরনের আপত্তিকর কিছু মনে হয়নি আমার’।

দেশে ফিরে তাসকিন দুই বার আদালতের মুখোমুখি হন। তখন তিনি আত্মপক্ষ সমর্থন করে বিবৃতি দেন। তখন তিনি ধারণা করেছিলেন, এই বিষয়টা এখানেই শেষ। কিন্তু চলতি বছরের শুরুর দিকে পুনরায় ইস্তাম্বুলের আদালতে তাকে তলব করা হয়। এতে তিনি অবাক হয়েছিলেন।

এই ঘটনাটি নেদারল্যান্ডে আলোচিত হয়েছে। বিবিসিকে আমস্টারডাম সেক্স মিউজিয়ামের পরিচালক মনিক ভ্যান মার্লে বলেন, এই পরিস্থিতি একেবারে হাস্যকর।

তিনি বলেন, তাসকিনের সমস্যায় পড়ার কথা শোনে অত্যন্ত দু:খ পেয়েছি। তিনি অন্য নারীদের জন্য রোল মডেল হবেন।

পরিচালক বলেন, আমাদের মিউজিয়ামটি সারাবিশ্বের মানুষকে যৌনতার ইতিহাস সম্পর্কে সচেতন ও শিক্ষিত করার উদ্দেশে করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন