চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সুস্থ হয়ে অভিনয়ে ফিরতে চেয়েছিলেন টেলি সামাদ

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের স্বাদ না পাওয়ার মতো জীবনের শেষ ইচ্ছেটিও পূরণ হলো না এক সময়ের বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম কমেডিয়ান অভিনেতা টেলি সামাদের। 

২০১৫ সালে সর্বশেষ সদ্য প্রয়াত অভিনেতা টেলি সামাদকে দেখা গিয়েছিলো বড় পর্দায়। অনিমেষ আইচ পরিচালিত ‘জিরো ডিগ্রী’তে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন তিনি। এরপর আর অভিনয় করতে দেখা যায়নি তাকে। গেল বছরে বেশ অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। দিনকে দিন শারীরিক অবস্থার অবনতি তাকে শয্যাশায়ী করে দেয়। তবু সুস্থ হয়ে ফের অভিনয় করতে চেয়েছিলেন সত্তর ও আশির দশকের কমেডি ধারার তুমুল জনপ্রিয় এই অভিনেতা।

গেল বছরের শুরুতে চ্যানেল আই অনলাইনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ফের অভিনয়ে ফেরার ইচ্ছের কথা জানিয়ে ছিলেন টেলি সামাদ। বলেছিলেন, আমি অভিনয়ের মানুষ। জীবনে আমার যা কিছু অর্জন সবকিছু অভিনয়ের বদৌলতে। অনেক দিন যাবত অভিনয় থেকে দূরে থাকলেও আমার মনটা পড়ে থাকে অভিনয়েই। প্রবল ইচ্ছা থাকা স্বত্বেও শরীর পেড়ে ওঠেনা বলে আর ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে পারিনা। সকলের কাছে দোয়া চাই যেন শিগগির সুস্থ হয়ে আবারো অভিনয়ে ফিরতে পারি।

বিজ্ঞাপন

অসংখ্য দর্শকপ্রিয় ও মানসম্মত চলচ্চিত্রে অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার না পাওয়ার ‘আক্ষেপ’-এর মতো অভিনয়ে ফেরার ইচ্ছেটাও অপূর্ণ রেখেই শনিবার (৬ এপ্রিল) মৃত্যু বরণ করেন দাপুটে এই অভিনেতা।

টেলি সামাদের মৃত্যুতে চলচ্চিত্রাঙ্গনে শোকের ছায়া। তার মৃত্যুতে শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিন সন্ধ্যার পর তার দু’দফা জানাজা শেষে রবিবার সকাল ১১টায় এফডিসি প্রাঙ্গণে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য নেয়া হবে বলে জানিয়েছে তার পরিবার। এরপর সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হবে তার গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জে। সেখানেই চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন এই অভিনেতা।

ভাত দে, রঙিন রূপবান, অশিক্ষিত, গোলাপী এখন ট্রেনে, কেয়ামত থেকে কেয়ামতসহ বেশকিছু ছবিতে তার অভিনয় দাগ কেটে গেছে বাংলার দর্শকের মনে।

বিজ্ঞাপন