চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সীমান্ত বিলে ভারতের চূড়ান্ত অনুমোদন

ভারতের লোকসভায় বাংলাদেশ-ভারত স্থল সীমানা বিল পাস হয়েছে। বিলটির ইতিহাসের বিভিন্ন দিক আলোচনা করে লোকসভায় স্থল সীমান্ত চুক্তিটি তোলেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।

বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বিলটি তোলার সময় সুষমা স্বরাজ বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক ৭১’এর মতো সুসংহত বলে মন্তব্য করেন।

বিজ্ঞাপন

বিল নিয়ে লোকসভায় দীর্ঘ আলোচনা করেন ভারতীয় সাংসদরা। দীর্ঘ আলোচনার পর লোকসভার সদস্যরা ৩২২ পক্ষে এবং বিপক্ষে ০১ ভোট দিয়ে বিলটি পাস করেন। এসময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও উপস্থিত ছিলেন।

সবশেষে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী প্রতিবেশি পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, মেঘালয়, ত্রিপুরা আর মিজোরামের নেতারাও বিলটি পাস হওয়ায় সাধুবাদ জানান।

বিজ্ঞাপন

এর আগে গতকাল বুধবার বিলটি রাজ্যসভায় পাস হয়।

চুক্তিটি বাস্তবায়ন হলে দু’দেশের মধ্যে যে ৬.৫ কিলোমিটার এলাকা চিহ্নিত নয় তা চিহ্নিত হয়ে যাবে। আর চুক্তি বাস্তবায়ন হলে দু’দেশের মধ্যে থাকা ছিটমহলের মানুষেরা পাবে মূল দেশের পরিচয়।

চুক্তির ফলে বাংলাদেশকে ১১১টি ছিটমহল ফেরত দেবে ভারত। এগুলোর মোট আয়তন ১৭ হাজার ১৬০ একর। অন্যদিকে ভারতকে বাংলাদেশ ৫১টি ছিটমহল দেবে যেগুলোর আয়তন ৭ হাজার ১০ একর।

১৯৭৪’এ মুজিব-ইন্দিরা চুক্তিতে সীমান্ত এবং অপদখলীয় জমির হিসাব পরিস্কার উল্লেখ থাকলেও ভারতের পার্লামেন্টে বিলটি পাস না হওয়ায় স্থায়ী সমাধান হয়নি।

ছিটমহলগুলো ৪৭ সালের দেশ ভাগের পর থেকে ঝুলে ছিল। বাসিন্দারা যেখানে বসবাস করে সেখানকার কোনো সুযোগ সুবিধা পায়নি। এখন ১১১ টি ছিটমহলের মানুষ বাংলাদেশের নাগরিক হবার সুযোগ পাবে।