চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সিলেটে খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে সিলেট পৌঁছেছেন। সিলেট সার্কিট হাউজে কিছু সময় যাত্রা বিরতি শেষে হযরত শাহজালাল ও হযরত শাহ পরানের মাজার জিয়ারত করার কথা রয়েছে তার।

বিজ্ঞাপন

এরআগে খালেদা জিয়ার সিলেট যাওয়ার পথে ঢাকা থেকে নরসিংদী পর্যন্ত সড়কে নেতাকর্মী-সমর্থকদের উপস্থিতি তেমন না থাকলেও নরসিংদীর পর থেকে ব্যাপক লোক সমাগম হতে দেখা যায়। অনেক স্থানে পুলিশের ব্যারিকেড এড়িয়ে সড়কে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উদ্দেশ্য করে স্লোগান দিতেও দেখা যায়।

বিজ্ঞাপন

নরসিংদীর শিবপুর ও চৈতন্যবাজারে বিএনপি সমর্থকদের সাথে প্রায় ১০ মিনিট রাস্তায় দাঁড়িয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন খালেদা জিয়া। মনোহরদী ও ভৈরবেও বিএনপি সমর্থকরা ব্যানার-পোস্টার হাতে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

এরপর ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে সমর্থকরা বিএনপি চেয়ারপার্সনকে স্বাগত জানান। সেসময় ‘আমার নেত্রী আমার মা, বন্দী হতে দিবো না’ স্লোগান ছিলো প্রত্যেকের মুখে মুখে।

পরে বিকেল সাড়ে ৪টায় খালেদার গাড়িবহর সিলেটে পৌঁছান। তবে বিভিন্ন স্থানে পুলিশ বিএনপি সমর্থকদের ওপর লাঠিচার্জ করেছে বলে অভিযোগ করছেন নেতাকর্মীরা।

এর আগে নরসিংদীর ভেলানগরে নৌকার মিছিল নিয়ে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে ধাওয়ার চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ উঠে। ওই সময় হাতে জুতা নিয়ে নৌকার পক্ষে স্লোগান দেওয়া হয় বলে বিএনপির সমর্থকরা অভিযোগ করেন।

এছাড়াও হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে খালেদা জিয়ার গাড়ী বহরের সামনে উপস্থিত নেতাকর্মীদের উপর পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়েছে বলে জানিয়েছেন চেয়ারপার্সনের মিডিয়া উইংয়ের কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার।

খালেদার এ সফরে বিএনপির স্থায়ী কমিটির শুধু তিন সদস্য- মির্জা আব্বাস, ড. মঈন খান ও আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী রয়েছেন। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামও এ সফরে নেই। তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন।

সোমবার সকাল সোয়া ৯টায় সিলেটের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া।

খালেদা জিয়ার এ সফর নির্বাচনী প্রচারণার কোনো অংশ নয় বলে জানিয়েছেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

সকালে গাড়িবহর বের হওয়ার পূর্ব মুহূর্তে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন শুধু মাজার জিয়ারত করতে যাচ্ছেন। এটি কোন নির্বাচনী সফর নয়। তিনি শুধু মাজার জিয়ারত করবেন। তবে তিনি যেহেতু দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী সে কারণে পথে পথে জনগণ তাকে স্বাগত জানাবে, এটি স্বাভাবিক।

সরকারের কাছে খালেদা জিয়ার নিরাপত্তা চাওয়া হয়েছে কিনা- জানতে চাইলে আমির খসরু বলেন, বেগম খালেদা জিয়া দেশের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তাছাড়াও একটি দলের প্রধান। তার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়-দায়িত্ব পুরোপুরি সরকারের। তার কিছু হলে দায়ও সরকারের।

তবে খালেদা জিয়ার একান্ত সচিব এ বি এম আব্দুস সাত্তার স্বাক্ষরিত এক নোটিশে সিলেট জেলা প্রশাসন, পুলিশ কমিশনার, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশকে প্রয়োজনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। এ নোটিশে পর্যাপ্ত নিরাপত্তাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সকলের কাছে অনুরোধ জানানো হয়।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং এরশাদ সিলেটের মাজার জিয়ারত করে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন।