চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সিরিয়ায় হামলা: বেড়েছে তেল ও স্বর্ণের দাম, মিশ্রভাব ডলারে

সিরিয়ায় বিমান ঘাঁটিতে মার্কিন মিসাইল হামলার পর বিশ্বের তেলের বাজারে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। এক মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ দামে তেল বেচা-কেনা হয়েছে। শুধু তেল নয়, দুপুরে হামলার পর বিকেলে মন্দা অবস্থায় থাকা স্বর্ণের দামও বেড়েছে। অন্যদিকে মিশ্র অবস্থায় রয়েছে ডলারের দাম।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এসব উঠে এসেছে।

বিজ্ঞাপন

‘সিরিয়ায় মার্কিন হামলার পর তেলের দাম অস্থির’ শীর্ষক ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, দুপুরে সিরিয়ার সরকারি বিমান ঘাঁটিতে হামলার পরপরই বিশ্ব তেলের বাজার অস্থির হয়ে উঠছে।

এদিন অশোধিত প্রতি ব্যারেল তেলের দাম বেড়ছে এক শতাংশের বেশি। এর কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, সিরিয়ায় তেল উৎপাদন হয় কম কিন্তু দেশটি সবচেয়ে বেশি তেল উৎপাদনকারী মধ্যপ্রাচ্যের অন্তভূর্ক্ত হওয়ায় হামলার পর এসব অঞ্চলে তেল উৎপাদনে বিঘ্ন ঘটতে পারে-এমন আশঙ্কা থেকেই তেলের দাম বেড়েছে।

শুধু তেল নয়, দুপুরে হামলার পর বিকেলে মন্দা অবস্থায় থাকা স্বর্ণের দামও বেড়েছে। আর ইয়েনের তুলনায় ডলারের দাম কিছুটা হোঁচট খেয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া হামলার প্রভাব পড়েছে পুঁজিবাজারেও। নিম্নমুখি প্রবণতা দিয়েই শুরু হয়েছে ইউরোপের পুঁজিবাজার। তবে যুক্তরাজ্যের বাজারে কিছুটা উর্দ্ধমুখি ছিল।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, মন্দভাব থাকা স্বর্ণের দাম বেড়েছে ১ দশমিক ১ শতাংশ। আর ডলারে ছিল মিশ্রভাব। ইয়েনের তুলনায় ডলারের দাম কিছুটা কমেছে। তবে স্টারলিং, ইউরো ও সুইস ফ্রাঁর বিপরীতে সামান্য বেড়েছে।

হামলার পর জাপানের শেয়ার বাজারে জ্বালানী খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দাম বেড়েছে।

বিষেশজ্ঞরা বলছেন, বাজারে হামলার এই প্রভাব স্থায়ী হবে না। এটা স্বল্প সময়ের জন্য। যেহেতু যুক্তরাষ্ট্র বলছে, এটা ছিল একবারের জন্য।

সিঙ্গাপুরের শেয়ার বাজার বিশেষজ্ঞ ক্রিস্টোফার মল্তকে-লেথ (Christoffer Moltke-Leth) বলেন, ‘বাজার যখন ভালোর দিকে ফিরে আসা শুরু করছিল তখন এ হামলার ঘটনা ঘটল। তবে এটি পুনরায় ঘটবে বলে মনে হয় না। তাই এর প্রভাব বেশি স্থায়ী হবে না।’

তবে এ হামলার পর আরও হামলা চালানো হবে বলে সিরিয়াকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।