চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সিরিজ লোকাল, তবে লুফে নিচ্ছেন সব অঞ্চলের দর্শক

চরকিতে ৮ পর্বের লোকাল সিরিজ ‘শাটিকাপ’

সীমান্তে প্রতিদিন কত কত ঘটনা ঘটে যায়। যার বেশির ভাগ ঘটনা থেকে যায় লোকচক্ষুর আড়ালে। রাজশাহীর এক এলাকার কিশোর গ্যাং আরেক এলাকার প্রভাবশালী মাদক কারবারি একচেটিয়া আধিপত্যে বড়সড় বাঁধা সৃষ্টি করে। কিশোর গ্যাংকে ধরার জন্য বিশ্বস্ত ইনভেস্টিগেটিভ অফিসারকে কাজে লাগায় প্রভাবশালী মাদক কারবারি। সাপলুডুর মতো এক অদ্ভুত কাটাকুটি খেলার শুরু হয়।

এমনই একটি খাঁটি র-গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ৮ পর্বের ওয়েব সিরিজ ‘শাটিকাপ’। এ বছরের প্রথম অরিজিনাল সিরিজ হিসেবে বিশ্বব্যাপী দেশীয় স্ট্রিমিং প্লাটফর্ম চরকির পর্দায় সেটি মুক্তি পেল বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি)।

মজার ব্যাপার হলো, শাটিকাপ-এর অভিনয়শিল্পী ও কলাকুশলী সবাই রাজশাহীর স্থানীয়। সেই সঙ্গে গল্পের প্রেক্ষাপট, ভাষা, দৃশ্যধারণ সবই হয়েছে রাজশাহীতেই। তাই শাটিকাপ-কে শতভাগ লোকাল সিরিজ বলছে চরকি। তবে স্ট্রিমিংয়ের পর পরই দারুণ প্রশংসা পাচ্ছে সিরিজটি। আর সেটা অঞ্চল ভেদে নয়, প্রশংসা করছেন সব অঞ্চলের দর্শক।

আহসাবুল ইয়ামিন রিয়াদ, ওমর মাসুম, অমিত রুদ্র, নাজমুস সাকিব, শাহ্ আসিফ আহমেদ, ওয়াসিকুল ইসলাম রমিত, সাজিয়া খানম, গালিব সর্দার… এরকম ১৩৭ জন অভিনেতা আছেন এই সিরিজটিতে। নামগুলোও পরিচিত না। এমন একটি নাম না জানা দল, শত পরিশ্রম ও ত্যাগ দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে ‘শাটিকাপ’।

বিজ্ঞাপন

সিনেমা নিয়ে দিল্লীর এশিয়ান স্কুল অব মিডিয়া স্ট্যাডিজ থেকে পড়ালেখা করা রাজশাহীর ছেলে মোহাম্মদ তাওকীর ইসলাম। সবার কাছে পরিচিত শাইক নামেই। তিনি পরিচালনা করেছেন থ্রিলারধর্মী এই সিরিজটি।

এমন একটি খাঁটি গল্প ও তরুণ দলকে উৎসাহ, সম্মান, অনুপ্রেরণা দেয়ার জন্য ইতোমধ্যে সবার কাছে তুমুল প্রশংসা পাচ্ছে চরকি।

চরকিতে শাটিকাপ-এর মুক্তি নিয়ে বেশ উৎসাহিত পরিচালক তাওকীর। তিনি বলেন, ‘আমরা যখন শাটিকাপ বানাচ্ছিলাম তখন আমরা জানতাম না এটা কোথায় যাবে, কীভাবে মানুষ দেখবে। আনন্দ পাচ্ছিলাম তাই কাজটা করে যাচ্ছিলাম। তো ফাইনালি কাজটা চরকিতে এলো। এটাতে আমরা যে কি আনন্দিত, সম্মানিতবোধ করছি তা বলে বোঝানো সম্ভব না।’

শাটিকাপের অন্যতম চরিত্র বাবু। তার আসল নাম ওমর মাসুম। তিনি বলেন, ‘আমরা রাজশাহী শহরে দুই লটে ৬২ দিন শুটিং করেছি। শহরের পঞ্চবটীতে আমরা ১০-১২ দিন রাত ১০ থেকে ভোর পর্যন্ত শুট করেছি।’ সবাই যেনো ‘শাটিকাপ’ দেখে তাদের নিজস্ব মতামত জানান সেই প্রত্যাশাই ব্যক্ত করেন মাসুম।

চরকির প্রধান পরিচালক কর্মকর্তা রেদওয়ান রনি বলেন, ‘রাজশাহীর এই ট্যালেন্টড তরুণরা যে এত সুন্দর একটা কাজ করে ফেলেছে সেটা না দেখলে মিস করবে দর্শক। চরকি শুধু চেষ্টা করেছে এই তরুণদের একটা প্লাটফর্ম দেয়ার।’

বিজ্ঞাপন