চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাড়ি ফেরার পথে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী নার্স, ২ জন গ্রেপ্তার

সিরাজগঞ্জ জেলার কামারখন্দ থানায় এক কিশোরী নার্সকে গণধর্ষণের অভিযোগে ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার বিকেলে ওই নার্সের ভাই শরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে চার জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরও দু’জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন। এর মধ্যে অভিযুক্ত দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো: কামারখন্দ উপজেলার কুটিরচর গ্রামের আশরাফুল ইসলাম এবং একই এলাকার [...]

সিরাজগঞ্জ জেলার কামারখন্দ থানায় এক কিশোরী নার্সকে গণধর্ষণের অভিযোগে ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার বিকেলে ওই নার্সের ভাই শরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে চার জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরও দু’জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন।

এর মধ্যে অভিযুক্ত দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো: কামারখন্দ উপজেলার কুটিরচর গ্রামের আশরাফুল ইসলাম এবং একই এলাকার নাইমুল হক।

বিজ্ঞাপন

ধর্ষণের শিকার নার্স উল্লাপাড়া উপজেলার বামনগিয়ালা গ্রামের বাসিন্দা ও স্থানীয় একটি হাসপাতালে কর্মরত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

কামারখন্দ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) পলাশ চন্দ্র দেব জানান: অভিযুক্ত আশরাফুল ওই কিশোরী নার্সের পূর্ব পরিচিত ছিল। রোববার রাতে উল্লাপাড়া থেকে আশরাফুলের সাথে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। তারা কামারখন্দ উপজেলার কুটিরচর এলাকার ইউক্যালিপটাস গাছের বাগানের কাছে পৌঁছলে আশরাফুল অপর তিন বন্ধুকে ফোন করে ডেকে নেয়।

পরে তারা কিশোরীকে জোর করে একটি নির্মাণাধীন প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা প্রাচীরের ভেতরে একটি ঘরের মধ্যে চার বন্ধু ধর্ষণ করে। ভোর রাতে কুটিরচর এলাকায় ওই কিশোরীকে ফেলে ওই চারজন পালিয়ে যায়।

সকালে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় ওই কিশোরীর ভাই শরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে সোমবার দুপুরে অভিযুক্ত চারজনের নাম উল্লেখ ও ২ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে কামারখন্দ থানায় মামলা দায়ের করেন।

কামারখন্দ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুল ইসলাম জানান: মামলার পর অভিযুক্ত দু’জনকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Bellow Post-Green View