চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সিনেমা নিয়ে এমন উচ্ছ্বাস দেখেনি বাংলাদেশ

কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রথমবার অফিশিয়াল সিলেকশনে স্থান করে নিলো বাংলাদেশের সিনেমা ‘রেহানা মরিয়ম নূর’

বিশ্বের প্রাচীন ও মর্যাদাপূর্ণ চলচ্চিত্র উৎসব বলা হয় ‘কান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’কে। পৃথিবীর নামিদামি নির্মাতা, প্রযোজকরা এই উৎসবের অপেক্ষায় থাকেন। আর এই গুরুত্বপূর্ণ উৎসবে প্রথমবার অফিশিয়াল সিলেকশনে স্থান করে নিলো বাংলাদেশের সিনেমা ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন তরুণ নির্মাতা আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) কান চলচ্চিত্র উৎসব কর্তৃপক্ষ অফিশিয়ালি খবরটি প্রকাশ করে। যা মুহূর্তের মধ্যে বাংলাদেশের গণমাধ্যম ও সোশাল মিডিয়ায় আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। 

কানের ‘আনসার্টেন রিগার্ড’ (ভিন্ন দৃষ্টিকোণ) বিভাগে বাংলাদেশের সিনেমা জায়গা করে নেয়ার খবরে উচ্ছ্বাস, আনন্দে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন দেশের সাধারণ সিনেমা প্রেমী থেকে শুরু করে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা!

প্রায় সকলেই ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এর এই অর্জনকে বাংলাদেশের জন্য সম্মান আর গৌরবের বলেও আখ্যা দেন। এরআগে বাংলাদেশের কোনো সিনেমা নিয়ে একযোগে এতো মানুষের ইতিবাচক সাড়া, মন্তব্য কিংবা অভিনন্দনের জোয়ার লক্ষ্য করা যায়নি। নাটক, সিনেমার সেলিব্রেটি মুখ থেকে শুরু করে সাধারণ সিনেমাপ্রেমী মানুষটির ভার্চুয়াল দেয়ালও হয়ে উঠেছে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ময়!

এই ছবির নির্মাতা আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ সোশাল মিডিয়ায় না থাকলেও তিনি ও তার টিম ভাসছেন অভিনন্দনের জোয়ারে।

এমন প্রাপ্তিতে চ্যানেল আই অনলাইনকে এক প্রতিক্রিয়ায় ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এর সহপ্রযোজক রাজিব মহাজন জানিয়েছেন, আমরা গর্বিত। এটা আমাদের জন্য বিশাল অর্জন। এতোদূর যেতে পারছি, সেটা সম্ভব হয়েছে আমাদের টিমের কারণে। এমন আনন্দের খবরে সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা।

প্রশংসায় ভাসছেন এই ছবিতে মূল চরিত্রে অভিনয় করা জনপ্রিয় অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন। এমন অর্জনে তিনিও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন অভিনন্দনবার্তা পাঠানো প্রত্যেককেই।

তবে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এর এমন অর্জনে সবাই যে কথাটি জোর দিয়ে বলছেন, সেটা হলো- ‘এ অর্জন বাংলাদেশের সিনেমার জন্য গৌরবের!’ অন্তত তারকা নির্মাতা, প্রযোজক ও অভিনেতাদের কথাগুলো যেন সেটাই বলছে:

নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু:

আবু সায়ীদ:

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী:

অমিতাভ রেজা চৌধুরী:

জয়া আহসান:

শাকিব খান:

অপি করিম:

গাউসুল আলম শাওন:

মোহাম্মদ আলী হায়দার:

গোলাম সোহরাব দোদুল:

বিজ্ঞাপন

তানভীন সুইটি:

দীপংকর দীপন:

শিহাব শাহীন:

আবু শাহেদ ইমন:

অপূর্ব:

প্রসুন রহমান:

ফাখরুল আরেফীন খান:

আরফান নিশো:

শাফায়েত মনসুর রানা:

জ্যোতিকা জ্যোতি:

আশফাক নিপুণ:

আদনান আল রাজীব:

নওশাবা আহমেদ:

ইফতেখার চৌধুরী:

তানিম রহমান অংশ:

কৃষ্ণেন্দু চ্যাটার্জী:

ইমতিয়াজ বর্ষণ:

নাজিফা তুষি:

নিয়ামুল মুক্তা:

সোহেল রানা:

সুনেরাহ বিনতে কামাল:

২০০২ সালের ৫৫তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্যারালাল বিভাগের অংশ ডিরেক্টরস’ ফোর্টনাইট-এ নির্বাচিত হয়েছিল প্রয়াত চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ পরিচালিত ‘মাটির ময়না’ চলচ্চিত্রটি। কিন্তু প্রথমবারের মত অফিসিয়াল সিলেকশনে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ ছবিটি আমন্ত্রণ পাবার মাধ্যমে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

বিজ্ঞাপন