চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সিনেমায় তিতুমীরের জীবন, কেন্দ্রীয় চরিত্রে নিরব

সিনেমার পর্দায় উঠে আসছে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে বিপ্লবী হয়ে ওঠা ‘তিতুমীর’-এর জীবন কাহিনি। আর ওই সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্র ‘তিতুমীর’ হচ্ছেন চিত্রনায়ক নিরব।

২ ফেব্রুয়ারি সিনেমাটির জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এ নায়ক। ‘তিতুমীর’কে নিয়ে সিনেমা নির্মাণ করছেন ডায়েল রহমান। যিনি এর আগে দুদু মিয়ার জীবন কাহিনী আমিন খানের মাধ্যমে ‘ফরায়েজী আন্দোলন’ নামের সিনেমা তুলে ধরেছেন।

পরিচালক ডায়েল রহমান চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, মার্চ ও জুন এই দুইমাসে ‘তিতুমীর’ সিনেমার শুটিং হবে।

পরিচালক জানান, ‘তিতুমীর’ সিনেমায় দুজন নায়িকা থাকবেন। একজন বাংলাদেশের অন্যজন কলকাতার। শুটিংয়ের আগে তাদের নাম জানাবেন।

বিজ্ঞাপন

‘তিতুমীর’ নিহত হন ১৮৩১ সালে। তৎকালীন প্রজাদের তিনি ইউরোপীয় নীলকরদের অত্যাচারের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ এবং ব্রিটিশ শাসন থেকে বাংলাকে মুক্ত করার লক্ষ্যে আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

এ ধরনের ঐতিহাসিক ব্যক্তির চরিত্রে প্রথম অভিনয় করতে যাচ্ছেন নিরব। এ নায়ক মনে করেন এই সিনেমাটি তার ক্যারিয়ারে একটি অর্জন হবে!

নিরব বলেন, তিতুমীর হবে ঐতিহাসিক সিনেমা। ছোটবেলা ইতিহাসের পাঠ্য বইতে তাকে এবং তার বাঁশের কেল্লা পড়েছি। সেই মানুষটিকে ধারণ করে এবার সিনেমাতে আমি অভিনয় করবো। ঠিকভাবে কাজ করতে পারলে চরিত্রটি আমাকে বাঁচিয়ে রাখবে।

নিরব জানান, ইতোমধ্যে তিতুমীর সম্পর্কে নতুন করে জানার চেষ্টা করছেন। জেনেছেন সাইয়িদ মীর নিসার আলী ওরফে তিতুমীর প্রথমে ছিলেন একজন কুস্তিগির। তার দাদি তাকে তিতা খাওয়াতো। তিনি এতোই তিতা খেতে পারতেন যে তার নাম সেখান থেকে হয়ে যায় তিতুমীর।

নিরব বলেন, এসব বিভিন্ন ঘটনা পর্দায় উঠে আসবে। থাকবে তার জীবনের সংগ্রাম, বাঁশের কেল্লাসহ বিভিন্ন দিক। চরিত্রটির জন্য নিরবের লুক হবে তিতুমীরের মতোই। যোগ করে বলেন, ‘তিতুমীর’ সিনেমা হাতে নেওয়ার আগে অনেক ভেবেছি। সবকিছু বুঝেই কাজটি করতে যাচ্ছি।

বিজ্ঞাপন