চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সিঙ্গাপুরে এইচআইভি আক্রান্তের তথ্য চুরি হয়ে অনলাইনে

সিঙ্গাপুরে ভ্রমণে যাওয়া এবং সেখানকার বাসিন্দাদের মধ্যে অন্তত ১৪,০০০ জন এইচআইভি ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার গোপন তথ্য চুরি হয়ে গেছে এবং সেটা অনলাইনে ছড়িয়ে পড়েছে।

সোমবার ২০১৬ সালের স্বাস্থ্য তথ্য লঙ্ঘনের বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন কর্তৃপক্ষ। তাদের বিশ্বাস এইচআইভি আক্রান্ত এক মার্কিন নাগরিকের সঙ্গী সিঙ্গাপুরিয়ান ডাক্তার এই তথ্য ফাঁসের পেছনে ছিলেন।

এর মাত্র কয়েক মাস আগে সিঙ্গাপুরি প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুংসহ আরো অন্তত ১.৫ মিলিয়ন সিঙ্গাপুরির তথ্য চুরি হয়ে গেছিলো।

সম্প্রতি ফাঁস হওয়া তথ্যভাণ্ডারে অনেকের নাম, পরিচয়, এইচআইভি অবস্থা এবং অন্যান্য মেডিকেল অবস্থা সংযুক্ত ছিলো।

২০১৩ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত ৫,৪০০ সিঙ্গাপুরি এবং ৮,৮০০ জন বিদেশির প্রেমের ব্যাপারে আপোষ করা হয়। ২০১৫ পর্যন্ত এইচআইভি আক্রান্ত বিদেশিদের শহরে প্রবেশই নিষেধ ছিলো, এমনকি পর্যটক হিসেবেও।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আর বর্তমানে যারা ৯০ দিনের বেশি সেখানে থাকতে চায়, সেটা কাজের জন্যই হোক তাদেরও অতিঅবশ্যই মেডিকেল চেকআপ করতে হয় নিশ্চিত হবার জন্য যে তাদের এইচআইভি আছে কিনা।

কর্মকর্তাদের বিশ্বাস ২০০৮ সাল থেকে সিঙ্গাপুরে বসবাস করতে থাকা ৩৩ বছর বয়সী মার্কিন নাগরিক এই তথ্য ফাঁসের পেছনে রয়েছে।

মিখি ফারেরা ব্রোচেজ গত বছর ধোকা ও মাদক সংশ্লিষ্ট অপরাধে অভিযুক্ত ও জেলের সাজা পেয়েছিলেন।  তিনি সিঙ্গাপুরের জাতীয় জনস্বাস্থ্য ইউনিটের প্রধান লির টেক সিয়াংয়ের সঙ্গী। তিনিই ফারেরাকে এইচআইভি স্ট্যাটাস গোপন করার মেডিকেল রেকর্ড দেন।

কর্মকর্তারা বলেন লির ফারেরার রক্তের জায়গায় নিজের রক্তের লেবেল দিয়ে দেন যেন তিনি দেশে প্রবেশ করতে পারেন।

এক বিবৃতিতে সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই তথ্য ফাঁসের জন্য লিরকে দায়ী করে বলেন, গোপন তথ্যের ব্যাপারে নিয়মনীতি অনুসরণ করেননি তিনি।