চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাড়া ফেলেছে বিদেশি ভাষার যে পাঁচ ওয়েব সিরিজ

অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিসগুলো আসার আগে অনেকেরই বিদেশি ওয়েব সিরিজগুলোর সম্পর্কে তেমন কোনো ধারণা ছিল না। নেটফ্লিক্স, ডিজনি প্লাস হটস্টার, আমাজন প্রাইম ভিডিও এসে মানুষের পছন্দ অনেকটাই বদলে দিয়েছে। বিশেষ করে করোনাভাইরাসের কারণে ঘরবন্দী জীবন কাটাতে অনেকেই বেছে নিয়েছেন ওটিটি সার্ভিসগুলোকে।

এখন মানুষ সহজেই দেখতে পারছে বিশ্বের যে কোনো দেশের যে কোনো নির্মাতার কাজ। করোনাকালে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে বিভিন্ন দেশের বেশ কয়েকটি ওয়েব সিরিজ। ফিচারটি সাজানো হয়েছে তেমনই পাঁচটি ওয়েব সিরিজ নিয়ে:

ডার্ক: নেটফ্লিক্স প্রযোজিত জার্মান সায়েন্স ফিকশন ও থ্রিলার ধাঁচের ওয়েব সিরিজ ডার্ক খুব জনপ্রিয়। নির্মাণ করেছেন ব্যারেন বো ওডার এবং জান্তজে ফ্রিজ। সিরিজটির গল্প জার্মানির উইন্ডেন নামের একটি শহরকে ঘিরে। এই শহরে ২০১৯ সালের প্রেক্ষাপটে গল্প শুরু হয়। শহরের এক ছোট্ট ছেলে মিকেল। তার হারিয়ে যাওয়া থেকেই মূল ঘটনার শুরু। শহরের কাছেই এক জঙ্গলের মধ্যে একটি গুহা। সেই গুহার আশেপাশেই নিখোঁজ হয়েছিলো মিকেল। একপর্যায়ে নিজের ছেলেকে খুঁজতে বেরিয়ে পরে বাবা উলরিক। ঘটতে থাকে একের পর এক ঘটনা। নেটফ্লিক্সে এই সিরিজের তিনটি সিজনই আছে।

মানি হেইস্ট: নেটফ্লিক্সের সবচাইতে জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজগুলোর একটি ‘মানি হেইস্ট’ (কাসা দে লা পাপেল)। প্রফেসর, নাইরোবি, হেলসিনকি এবং র‍্যাকেল চরিত্রগুলো দর্শকের জীবনের সাথে মিশে গেছে। এই সিরিজের চারটি জনপ্রিয় সিজনই নেটফ্লিক্সে আছে। ‘প্রফেসরের কী হবে’ এমন প্রশ্ন রেখে নাটকীয়ভাবে শেষ হয়েছে স্প্যানিশ এই ওয়েব সিরিজের চতুর্থ সিজন। সিরিজটির পঞ্চম সিজন আসছে। ‘মানি হেইস্ট’ গ্যাংটির ভাগ্যে কী আছে, তা নিয়ে জল্পনাকল্পনা শুরু করেছে ভক্তরা।

ইনটু দ্য নাইট: নেটফ্লিক্সের এই বেলজিয়ান সিরিজটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এক ন্যাটো সৈন্য প্লেন হাইজ্যাক করে এবং যাত্রীদের জানিয়ে দেয় যে দ্রুত প্লেন উড়াতে হবে, নাহলে সূর্যের আলোতে তাদের মৃত্যু হবে। তারা ভ্যাম্পায়ার না। নির্মাতারা এই বিষয়ে যে যুক্তি দিয়েছেন তা বিজ্ঞানীদের কাছে হাস্যকর মনে হয়েছে। তবে দর্শক বেশ উপযোগ করেছে।

ফাউদা: নেটফ্লিক্সের ইসরায়েলি টিভি সিরিজ ফাউদা। নির্মাতার নিজের অভিজ্ঞতা অবলম্বনে তৈরি হয়েছে এই সিরিজ।

এলিট: স্প্যানিশ সিরিজ এলিট এর সাথে জনপ্রিয় আমেরিকান সিরিজ গসিপ গার্লের কিছুটা মিল আছে। এখানেও হাই স্কুলের গল্প দেখানো হয়েছে। তবে আরও বেশি গভীর ভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে নানা বিষয়। নেটফ্লিক্সে এলিট-এর তিনটি সিজন আছে। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

শেয়ার করুন: