চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় ভাষা শহীদদের স্মরণ

অমর একুশে ফেব্রুয়ারি আজ। মহান ভাষা শহীদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। ১৯৫২ সালের এই দিনে রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে শহীদ হন রফিক, শফিক, সালাম, বরকত, জব্বারসহ আরও অনেকে। সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান ভাষা শহীদদের স্মরণ করছে জাতি।

একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শহীদ বেদিতে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে সম্মান জানান রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী।মন্ত্রীপরিষদের সদস্য ও দলীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে শহীদবেদিতে শ্রদ্ধা জানান আওয়ামী লীগ সভাপতি। এরপর একে একে শ্রদ্ধার মিছিলে জাতীয় সংসদের স্পিকার ডক্টর শিরীন শারমিন চৌধুরী, বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, তিন বাহিনীর প্রধান, পুলিশ প্রধান ও বাংলাদেশে কর্মরত বিভিন্ন দেশের কুটনীতিকরা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বেদি প্রাঙ্গণে মিষ্টি হিমেল হাওয়ায়, সাদা কালো মিশেল সাজে, একরাশ ফুলে ভরে যায় শহীদ বেদি। মাথা নত না করার এই দিনে দেশকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন সবাই।  সকালে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে শহীদ বেদিতে পুস্পার্ঘ অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জানিয়েছে নেতাকর্মীরা।

একুশের প্রথম প্রহরে চট্টগ্রাম কেদ্রীয় শহীদ মিনারে হাজার হাজার মানুষ ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। প্রথমে শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। এরপর চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার, ডিআইজি, পুলিশ কমিশনার, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন ভাষা শহীদদের প্রতি পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করে শ্রদ্ধা জানান।

সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান সিলেটের  জনসাধারণ। রাত ১২টা ১ মিনিটে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা ও মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড। পরে একে একে শ্রদ্ধা জানান বিভাগীয় কমিশনার, পুলিশ কমিশনার, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, জেলা প্রশাসন, বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সমূহ।

বিজ্ঞাপন

একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ হাদসি পার্কের শহীদ মিনারে খুলনা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা প্রশাসন, বিভাগীয় কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি, কমিশনার, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগ, প্রেসক্লাব ও পেশাজীবী, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন সহ সর্বস্তরের জনতা শ্রদ্ধা জানায় শহীদ বেদিতে।

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রথম প্রহরে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি ময়মনসিংহে টাউন হল কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করে দিবসের সূচনা করেন।  পরে জাতীয় সাংসদ, সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ, বিভাগীয় কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) রেঞ্জ ডিআইজি, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দসহ, ময়মনসিংহ প্রেসক্লাব, বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

রংপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পর্ঘ্য অর্পণ করেছেন, বিভাগীয় কমিশনার, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, ডিআইজি রংপুর রেঞ্জ, মেট্রোপলিটন পুলিশ, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, বিএনপি, জাসদ, বাসদসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংষ্কৃতিক ও রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সর্বস্তরের মানুষজন।

রাত ১২ টা ১ মিনিটে রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে পুস্পার্ঘ অর্পণ করেছেন রাজশাহী সিটি কর্পরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামীলীগ- সাধারণ সম্পাদক সহ নেতাকর্মীরা। পরে মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ নেতাকর্মীদের নিয়ে পুস্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। এছাড়াও জাতীয় পার্টি, মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ছাত্র সংগঠন পুস্পার্ঘ্য অর্পণ করে।

বরিশালে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে একুশের প্রথম প্রহর থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন শুরু হয়। প্রথমে শ্রদ্ধা জানান বরিশাল ১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ্। পরে সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ্ ও বিভাগীয় কমিশনার মো.ইয়ামীন চৌধুরী শ্রদ্ধা জানান ।এছাড়া পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি ও জেলা প্রশাসক, মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন সংগঠন একে এক শ্রদ্ধা জানান। সকালে বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী এবং রাজনৈতিক সংগঠনগুলো প্রভাতফেরিতে অংশ নেন।

একুশের এই দিনে সারাদেশে রয়েছে নানা আয়োজন। দিনব্যাপী পালিত হবে বিভিন্ন অনুষ্ঠান। শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করা হবে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান ভাষা শহীদদের।

বিজ্ঞাপন