চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে কানাডায় গণ মিছিল ও প্রতিবাদ

বাংলাদেশ সনাতন ধর্মাবলম্বী জনগোষ্ঠীর উপর হামলা, নির্যাতন, হত্যা, মন্দিরে, বাড়িঘরে, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিসংযোগ, লুটপাটসহ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে মন্ট্রিয়লে এক বিশাল গণ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মন্ট্রিয়ল ডাউন টাউনের ব্যস্ত সড়কের ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস, উই ওয়ান্ট জাস্টিস’র গণ-উচ্চারণে মুখরিত হয়ে উঠেছিল গত রবিবারের সারাদিন। পাঁচ বছরের শিশু থেকে পঁচাশি বছরের বৃদ্ধ নেমেছিলেন সেই গণমিছিলে।

কানাডায় জন্ম নেয়া ও বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মের এতো বেশি উপস্থিতি আগে কখনও দেখা যায়নি। পুরো সমাবেশটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত এগিয়ে নিয়ে যায় কয়েক শত প্রবাসীদের মিছিলে মুখরিত।

বিজ্ঞাপন

মিছিলটির শুরু হবার পূর্বে কানাডায় জন্ম নেওয়া ন‍তুন প্রজন্মের ছেলে মেয়েরা ইংলিশ ও ফরাসী ভাষায় বক্তব্য রেখে ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করে। দুপুর বারোটার পর দলে দলে পরিবার পরিজন নিয়ে রকমারি ব্যানার ফেস্টুন, প্লেকার্ড নিয়ে শিশু-কিশোর তথা আবালবৃদ্ধবণিতা দল-ধর্ম নির্বিশেষে উপস্থিত হয়ে বাংলাদেশে বার বার সংখ্যালঘু নির্যাতনের তীব্র প্রতিবাদ জানান। বিভিন্ন সরকারের আমলে একই কায়দায় বার বার মিথ্যে অভিযোগ এবং ফেক আইডি দিয়ে সংখ্যালঘুদের ওপর বর্বরোচিত হামলা চালানো হয়। কোন সরকারের আমলেই এসব ঘটনার বিচার না হওয়াতে প্রতিদিন প্রতিনিয়ত বাংলাদেশের সংখ্যালঘু নিধনকার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বক্তারা।

মিছিলটি এটওয়াটার থেকে শুরু হলেও ডাউন টাউনের প্রাণকেন্দ্র সেন্ট ক্যাথরিন স্ট্রিট দিয়ে প্রায় দুই কিলোমিটার পদমিছিল করে গেই কর্নকর্ডিয়ায় সমাপ্তি হয় আয়োজকের অন্যতম ‍উদ্যোক্তা প্রাক্তন অধ্যক্ষ ও জনপ্রতিনিধি ফণিন্দ্র কুমার ভট্টাচার্য এর সমাপনী বক্তব্যের মাধ্যমে।

মিছিলে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ ছাড়াও মুসলিম সম্প্রদায়ের ব্যক্তিবর্গসহ অনেক প্রগতিশীল সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। নতুন প্রজন্মের বক্তারা ম্লোগানে শ্লোগানে শুধু একটি দাবিই করেছেন, বিগতদিনে বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের ওপর বিভিন্ন সরকারের আমলে ভয়ানক নির্যাতন হয়েছে তার বিচার করে বাংলাদেশের হিন্দু সম্প্রদায়কে শান্তিতে বসবাস করার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য।

বিজ্ঞাপন