চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাম্প্রদায়িকতা ও মৌলবাদ প্রতিরোধে ছাত্র সমাজের করণীয়

সুব্রত গাইন: ধর্ম নিরপেক্ষ মানবিক সমাজ গড়ে তোলার লক্ষ্যে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির আয়োজনে ‘সাম্প্রদায়িকতা ও মৌলবাদ প্রতিরোধে ছাত্র সমাজের করণীয়’ বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডীনস্ কমপ্লেক্সে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল বলেন, একটি রাষ্ট্রের মধ্যে সাম্প্রদায়িকতা থাকলে সেই দেশে আর গণতন্ত্র থাকে না। এজন্য আমাদের ধর্ম নিরপেক্ষ হতে হবে। একজন মানুষ যদি তার সম্পূর্ণ অধিকার পায় তাহলেই গণতন্ত্র থাকবে। আজ সারা বিশ্বে ধর্মের আতঙ্ক হিসেবে জঙ্গি তৎপরতা চলছে। এসব হচ্ছে ধর্মের নামে মিথ্যা অপব্যাখ্যা দেয়ার কারণে। সুতরাং বাঁচতে হলে আগে মানুষকে তারপর জাতিকে গুরুত্ব দিতে হবে। এরপরে আসবে কে কোন ধর্মের।

তিনি আরো বলেন, যদি রাষ্ট্র ধর্মের সংখ্যা গরিষ্ঠতা দিয়ে হতো, তাহলে যে ধর্মের লোক সংখ্যা বেশি তারা আমাদের শাসন করতো। তাই আমাদের লক্ষ্য হবে বাংলাদেশের সংবিধানের আলোকে ধর্ম নিরপেক্ষ জাতি গড়া। আর বাস্তবায়ন করতে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে মনের মধ্যে ধারণ করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

এসময় অন্যান্য বক্তরা বলেন, দেশের ঘাতক দালাল নির্মূল করার জন্য নির্মূল কমিটি দরকার হয় না যদি দেশের প্রতি ভালবাসা আর শ্রদ্ধাবোধ থাকে। ভারতে বৃটিশরা কত বছর শাসন করেছে এতে তাদের দেশে তো নির্মূল কমিটি করতে হয়নি। আমাদেরও করা লাগতো না যদি আমরা প্রকৃত বাঙালি হতে পারতাম।

একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার  সভাপতি রবিউল সরকার রুবেলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মামুুনুর রশীদের সঞ্চালনায় সভায় আরো  বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মাহাবুবুর রশীদ, রাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. নজরুল ইসলাম, ইতিহাস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক গোলাম সারওয়ার, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু, রাবির কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ইন্দ্রজিৎ কুমার।

এসময় ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সদস্যসহ রাজশাহী মহানগরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন