চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাম্প্রদায়িকতার বিপক্ষে আশার আলো

শারদীয় দুর্গোৎসবের সময় দেশের কয়েকটি জেলায় ধর্মীয় অবমাননার কথিত অভিযোগে তাণ্ডব চলেছে। সেসময় সাম্প্রদায়িক হামলা ঠেকানো না গেলেও শেষ পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে নানা তৎপরতা দেখা যাচ্ছে। সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদের বিরুদ্ধে রাজধানীর শাহবাগসহ দেশজুড়ে বিক্ষোভ হচ্ছে। এসব তৎপরতা সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে মানুষকে আশা দেখাচ্ছে।

চ্যানেল আই এবং চ্যানেল আই অনলাইনের খবরে এমন বেশকিছু বিক্ষোভ ও নাগরিক সমাজের উদ্বেগের খবর লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়া দেশজুড়ে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে গণঅনশনও হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতিমনা সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা আয়োজন করেছে ‘সহিংসতা বিরোধী কনসার্ট’। এর শিরোনামও আশা জাগানিয়া, ‘আক্রান্ত মাটি আক্রান্ত দেশ, এ মাটির কসম রুখবোই বিদ্বেষ’। শুধু দেশেই নয়, দেশের বাইরেও প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিক্ষোভ ও মানববন্ধনের মাধ্যমে এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনার নিন্দা, প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনায় করা মামলার বিচার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। আইনমন্ত্রীর এমন আশ্বাসে আমরা ভরসা রাখতে চাই। এই ভরসার পারদ উচ্চমাত্রায় ওঠার কারণ- ইতোমধ্যেই পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার প্রধান অভিযুক্ত ইকবালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়াও ইকবালসহ মোট চারজন রিমান্ডে রয়েছে। শিগগিরই এই হামলার কারণ এবং এর পেছনের কুশীলবদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

বিগত দিনসমূহের মতো আমরা এখনও সুস্পষ্টভাবে বলতে চাই, কোনো মানুষের ধর্মীয় উৎসবে হামলা ধর্মের কাজ হতে পারে না। কথিত ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগ উঠলেই বাড়িঘরে হামলার ঘটনাও সমর্থনযোগ্য নয়। বাংলাদেশের জন্মলগ্ন থেকেই এমন ধর্মীয় উগ্রবাদের বিরুদ্ধে লড়াই চলছে। এরপরও এসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বারবার হয়ে আসছে। এজন্য ধর্মীয় উগ্রবাদ কঠোর হস্তে দমনের পাশাপাশি সামাজিক পরিমণ্ডলে শিল্প-সংস্কৃতি চর্চা বাড়ানোর বিকল্প নেই।

কুমিল্লার ঘটনাসহ সাম্প্রতিক হামলার দৃষ্টান্তমূলক বিচার এবং ধর্মীয় সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে তরুণ সমাজকে জাগ্রত করার যথাযথ কর্মসূচি গ্রহণে উদ্যোগ নেওয়ার জন্যও আমরা সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

বিজ্ঞাপন