চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাবেক পুলিশ কর্মকর্তার বাগানে লাশ আর লাশ

এল সালভাদরের এক সাবেক পুলিশ কর্মকর্তার বাড়ি থেকে অন্তত আটটি পুঁতে রাখা মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সেখানে আরও কিছু মরদেহ থাকতে পারে। প্রাণ হারানোদের বেশিরভাগই নারী।

তবে সবগুলো মরদেহ উদ্ধার করতে করতে এক মাস লেগে যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পুলিশের বিশ্বাস, এর ফলে এক দশক ধরে চলা একটি গোপন হত্যাচক্র উদ্ধার করা সম্ভব হবে।

লাটিন আমেরিকার এই দেশটিতে নারীদের হত্যার হার অত্যধিক বেশি। করোনাভাইরাস মহামারির সময়ে তা আরও বেড়েছে। হুগো আর্নেস্টো ওসোরিও শ্যাভেজ নামের ওই ৫১ বছর বয়সী সাবেক পুলিশ কর্মকর্তাকে এই মাসে ছালচৌয়াপা শহরে আটক করা হয় ৫৭ বছর বয়সী এক নারী ও তার ২৬ বছর বয়সী এক মেয়েকে হত্যা করার দায়ে। এর আগে যৌন অপরাধে তার বিরুদ্ধে তদন্ত চালানো হয়। সে ওই দুজনকে হত্যার কথা স্বীকার করে।

পরে ফরেনসিক টিম শহরের রাজধানী থেকে ৪৮ কিলোমিটার দূরে সান সালভাদরে তার বাড়িতে অভিযান চালায়। সেখানে তারা সাতটি মরদেহ পান যেগুলো অন্তত ২ বছর আগে পুঁতে ফেলা হয়েছে।

শুক্রবার প্রসিকিউটর ম্যাক্স মুনোজ বলেন, একটি কবর থেকে আটটি মরদেহ পাওয়া গেছে। ডিএনএ টেস্ট করলে তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যাবে।

তবে শুরুতেই কর্মকর্তারা বলেছিলো অন্তত ২৪ টি মরদেহ আছে ওখানে। পরে অবশ্য তথ্যের বিষয়ে কোনো ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি।

অন্তত ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হচ্ছে। তাদের মধ্যে সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা, সাবেক সেনা, মানব পাচারকারী রয়েছে বলে জানান এল সালভাদরের জাতীয় পুলিশের ডিরেক্টর মওরিসিও আরিয়াজা চিকাস।

তিনি অভিযোগ তোলেন, অসোরিও শ্যাভেজ এক দশক ধরে হয়তো মানুষ হত্যা করছে।

নিহতদের দুজনের বয়স ২ বছর। পুলিশের তথ্য মতে, এল সালভাদরে গত বছর ৭০ জন নারীকে হত্যা করা হয়েছে আর ২০১৯ সালে সংখ্যাটা ছিলো ১১১।