চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাত রকমের বল করতে পারেন ৮ কোটির ‘রহস্যময়’ স্পিনার!

নিলামের আগেই তাকে নিয়ে ছিল টানাটানি। আইপিএলে অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা বরুণ চক্রবর্তী যে নিলামে একটা ধাক্কা দেবেন সেটা আগেই আন্দাজ করা যাচ্ছিল।

কিন্তু নামিদামী ক্রিকেটারদের ম্লান করে দিয়ে প্রায় অখ্যাত এক স্পিনারকে যে ৮ কোটি ৪০ লাখ রুপি খরচ করে কিনে নেবে কিংস ইলেভেনে পাঞ্জাব সেটা নিশ্চয় কেউ ভাবেননি! তাই নিলাম চলতে থাকা অবস্থায় শুরু হয়েছে কানাকানি, কে এই বরুণ চক্রবর্তী?

বরুণ চক্রবর্তী সম্পর্কে বলতে গেলে সবার আগে আসে তার বল হাতে তার বিরল এক গুণের কথা। ক্রিকেটার হিসেবে ২৭ বছর বয়সী বরুণ একজন স্পিনার। এমন একজন স্পিনার যার হাতে আছে কিনা ৭ রকমের বোলিং বৈচিত্র্য!

অফব্রেক, লেগব্রেক, গুগলি, ক্যারম বল, ফ্লিপার, টপস্পিন, আর্মবল; স্পিনাররা যত রকম বৈচিত্র্যে বল করেন তার প্রায় সবগুলো একাই করতে পারেন। কখন কী বল করবেন ব্যাটসম্যান সেটা আগেই আন্দাজ না করতে পারলে তার জন্য বরুণকে খেলা এক প্রকার দুরুহই হয়ে পড়বে। ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে তাই বরুণের নামই হয়ে গেছে রহস্যময় স্পিনার!

Advertisement

বোলিং বৈচিত্র্যের মত বৈচিত্র্যময় বরুণের ক্রিকেটের ক্রিকেট জীবনও। ১৩ বছর বয়সে ক্রিকেট খেলা শুরু করে চার বছর খেলেছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে। কিন্তু বয়সভিত্তিক দলগুলোতে একাধিকবার প্রত্যাখ্যাত হয়ে খেলাই ছেড়ে দিয়েছিলেন। চেন্নাইয়ের এসআরএম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থাপত্য বিষয়ে শেষ করেন স্নাতক। খন্ডকালীন স্থাপত্যবিদ হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি টুকটাক ক্রিকেটটা চালিয়ে গেছেন।

রক্তে ক্রিকেট থাকায় চাকুরি ভালো লাগেনি। তাই সব ছেড়ে আবারও মনে দিয়েছেন ক্রিকেটে। পজিশন পরিবর্তন করে হন পেসার।

কিন্তু আবারও কপাল খারাপ। পেসার হয়ে এক ম্যাচ খেলার পরেই পড়েন চোটে। তখনই সিদ্ধান্ত নেন পেসার থেকে হবেন স্পিনার। টেনিস বলে দারুণ টার্ন পাওয়ার পর দেখলেন তার হাতে আছে বৈচিত্র্য। ভেবেচিন্তে শুরু করলেন স্পিন বল।

জুবিলি ক্লাবের হয়ে ২০১৭-১৮ মৌসুমে চেন্নাইয়ের চতুর্থ বিভাগে বিস্ফোরক ক্রিকেট খেলেছেন বরুণ। ৫০ ওভারের ম্যাচে মাত্র ৩.০৬ রান রেটে নিয়েছেন ৩১ উইকেট। ব্যাট হাতেও দারুণ সিদ্ধহস্ত বরুণ। গত আইপিএলে কলকাতা ও চেন্নাইয়ের নেটেও বল হাতে নজর কাড়েন।

তবে বরুণ নজরে এসেছেন সদ্য শেষ হওয়া তামিল নাডু প্রিমিয়ার লিগে দারুণ পারফর্ম করে। টুর্নামেন্টে ২৪০টি বল করে ১২৫টিতে কোনো রান নিতে দেননি ব্যাটসম্যানকে। নিয়েছেন ৯ উইকেট। দল মাদুরাইকে জিতিয়েছেন প্রথম শিরোপাও। এই টুর্নামেন্টের পরেই নিশ্চিত হয়ে যায় আইপিএলেও পা পড়তে চলেছে তার। কিন্তু সেটা যে এতটা দামে সেটা নিশ্চয়ই কল্পনা করেননি বরুণ নিজেও!