চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাকিবের ব্যাখ্যায় হারের ‘চার’ কারণ

কার্ডিফ থেকে: বিশ্বকাপের ম্যাচে সেঞ্চুরি যেকোনো ব্যাটসম্যানের কাছেই রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা। সেটি যদি হয় প্রথম, তাহলে তো কথাই নেই। সুখকর স্মৃতি। কিন্তু কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১২১ রানের অসাধারণ ইনিংস খেললেও সেটি ঘিরে উচ্ছ্বসিত হতে পারছেন না সাকিব আল হাসান। বড় ব্যবধানে বাংলাদেশ দলের হারে বিফলেই গেছে বিশ্বকাপে বাঁহাতি তারকার প্রথম সেঞ্চুরিটি।

শনিবার দলের সেরা পারফর্মার সাকিবই আসেন ম্যাচশেষে সংবাদ সম্মেলনে। করেন হারের ব্যাখ্যা। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের বিশ্লেষণে উঠে এসেছে চার কারণ: ইংল্যান্ডের দারুণ শুরু ও ফিনিশিং, কন্ডিশন ও মাঠের আকার, মাঝামাঝি সময়ে মুশফিক ও মিঠুনের উইকেট দ্রুত হারানো এবং প্রতিপক্ষের সংগ্রহ মাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়া।

বিজ্ঞাপন

টস হেরে আগে ব্যাট করে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৮৬ রান তোলে ইংল্যান্ড। বাংলাদেশের নির্বিষ বোলিং ও বাজে ফিল্ডিংয়ের দিনে ওপেনিং জুটিতে আসে ১২৮। পাহাড়সম রান তাড়ায় নেমে সাকিবের একার লড়াইয়ের পর ৭ বল আগেই বাংলাদেশ অলআউট হয় ২৮০ রানে।

বিজ্ঞাপন

হারের ব্যাখ্যা করতে গিয়ে সাকিব বলেন, ‘আমরা প্রথম ম্যাচে সাউথ আফ্রিকা সঙ্গে ভালো ব্যাটিং করেছি। ইংল্যান্ড দারুণ ব্যাটিং করেছে। ওপেনাররা ভালো করেছে। আর বাটলারের ফিনিশিং ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট অব দ্য ম্যাচ।’

‘৩২০-৩৩০ রান হলে ম্যাচটাতে আমাদের সুযোগ থাকত। ৩০ ওভারে দিকে আমাদের রান ২ উইকেটে ১৮০ এর মতো ছিল। শেষ ২০ ওভারে ২০০ রানের মতো দরকার ছিল। টি-টুয়েন্টিতে অনেকসময় এটি হয়ে যায়। কিন্তু মুশফিক ও মিঠুন পরপর আউট হয়ে যাওয়া আমরা লড়াই করতে পারিনি।’

‘এখানকার কন্ডিশন ও মাঠের ডাইমেনশন একটু ভিন্ন। ওভালের মাঠ অনেক বড় ছিল। স্বাভাবিকভাবেই আমাদের স্পিনাররা মাঠে আক্রমণাত্মক থাকে। কিন্তু এখানে সেটি হওয়া যায়নি। আর সামনে ছোট হওয়া ওরা ওদিকেই চড়াও হয়েছে।’

Bellow Post-Green View