চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাকিবের ডাকে সাড়া দিলে ফাইনালই খেলা হত না

চরম উত্তেজনায় ভরা ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে নিধাস ট্রফির ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। কিন্তু ম্যাচের শেষ ওভারে ‘ওয়াইড-নো’ বল নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার সময় অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ডাকে সাড়া দিয়ে মাহমুদউল্লাহ মাঠ ছাড়লে ফাইনালেই ওঠা হত না টাইগারদের।

ঘটনা বাংলাদেশ ইনিংসের শেষ ওভারে। ইসুরু উদানা পরপর দুই বলে বাউন্স দেয়ার পরও ওয়াইড বা উচ্চতার নো বল না ডাকায় ক্ষেপে যান মাহমুদউল্লাহ। এসময় মাঠ আম্পায়ারদের সঙ্গে তর্কে জড়ান তিনি। একই সময়ে শ্রীলঙ্কার ফিল্ডারদের সঙ্গেও তর্কে জড়ান সাইডলাইনে থাকা বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা।

মাঠের দুই আম্পায়ার কথা বলেন মাহমুদউল্লাহ ও তার সঙ্গী রুবেল হোসেনের সঙ্গে। আর তৃতীয় আম্পায়ারের সঙ্গে বাইরে তর্ক জড়ান সাকিব। এসময় মাহমুদউল্লাহ ও রুবেলকে মাঠ ছেড়ে বাইরে আসার ডাক দেন সাকিব। কিন্তু মাঠ আম্পায়ারদের সঙ্গে কথা বলে সাকিবের ডাকে সাড়া না দিয়ে ব্যাটিং চালিয়ে যান দুই ব্যাটসম্যান। আর সাকিবকে সাইডলাইন থেকে প্যাভেলিয়নে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

Advertisement

ইএসপিএন-ক্রিকইনফো বলছে, ওই সময় সাকিবের ডাকে মাহমুদউল্লাহ সাড়া দিলে বাংলাদেশ ডিসকোয়ালিফাই হত। তাতে ভারতের বিপক্ষে ফাইনালই খেলা হত না টাইগারদের।

ওই সময়ে ঘটা উত্তেজনা নিয়ে পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে তামিম জানান, দ্বিতীয় বাউন্সটির সময় লেগ আম্পায়ার নো বলের ইশারা করেছিলেন, কিন্তু স্ট্রাইক প্রান্তের আম্পায়ার তাতে সাড়া দেননি। এতেই ক্ষেপে যান সাকিব।

ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণীর মঞ্চে অবশ্য বন্ধুত্বের কেতনই ওড়ালেন সাকিব। বললেন, ‘শর্টার ভার্সনের ম্যাচে উত্তেজনা অনেক বেশি থাকে। ইমোশনও অনেক বেশি কাজ করে। দ্রুত অনেক কিছু পরিবর্তন হয়। তবে উত্তেজনা যেটুকু মাঠেই। মাঠের বাইরে সবাই আমরা ভাল বন্ধু।’

‘টিম লিডার হিসেবে, দলের অধিনায়ক হিসেবে আমার আরো সতর্ক হওয়া উচিত ছিল। সামনে আরো সতর্ক হব।’-সাকিবের এই কথায় যেন খানিকটা আত্ম-উপলব্ধির সুর!