চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিক কাজল দুই দিনের রিমান্ডে

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের একটি মামলায় ফটো সাংবাদিক ও দৈনিক পক্ষকালের সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কাজলের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

গতকাল রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম (ভার্চুয়াল কোর্ট) দেবদাস চন্দ্র অধিকারী এ রিমান্ডের আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

হাজারিবাগ থানার এ মামলা তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিমের এসআই মো. রাসেল মোল্লা ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। তবে এদিন তাকে আদালতে হাজির করা হয়নি।

কারাগার থেকেই কাজলের ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভার্চুয়ালি উপস্থিত দেখানো হয়।

সাংবাদিক কাজলের পক্ষে আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া রিমান্ড বাতিলপূর্বক জামিনের আবেদন করেন।

রাষ্ট্রপক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা ( জিআরও) পুলিশের এসআই এস আশ্রাফ আলী জামিনের বিরোধীতা করে রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থনা করেন।

জিআরও আশ্রাফ আলী এসব তথ্য জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

চলতি বছরের ১০ মার্চ বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের যুগ্ম সম্পাদক ইয়াসমিন আরা বেলী মামলাটি দায়ের করেন।

এর আ‌গে গত ৯ মার্চ রাজধানী ঢাকার শেরে বাংলা নগর থানায় কাজ‌লসহ ৩২ জ‌নের বিরু‌দ্ধে ডি‌জিটাল নিরাপত্তা আই‌নে প্রথম মামলা‌টি ক‌রেন মাগুরা-১ আস‌নের সরকার দলীয় সাংসদ সাইফুজ্জামান শেখর। গত ২৪ জুন ওই মামলায় তার জা‌মিন আ‌বেদন নামঞ্জুর হয়।

এরপর ১০-১১ মার্চ রাজধানী হাজারীবাগ ও কামরাঙ্গীরচর থানায় ডি‌জিটাল নিরাপত্তা আই‌নে আরও দু‌টি মামলা হয়। এর ম‌ধ্যে হাজারীবাগ থানার মামলায় এবার তা‌কে রিমা‌ন্ডে পাঠা‌নো হ‌লো।

সংসদ সদস্য শেখ‌রের মামলার পর ১০ মার্চ সন্ধ্যায় রাজধানীর হাতিরপুলের ‘পক্ষকাল’ অফিস থেকে বের হওয়ার পর সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল নি‌খোঁজ হন। তাই ১১ মার্চ চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন তার স্ত্রী জুলিয়া ফেরদৌসি নয়ন।

গত ১৩ মার্চ জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে শফিকুল ইসলাম কাজলকে সুস্থ অবস্থায় ফেরত দেওয়ার দাবি জানায় তার পরিবার। পরে ১৮ মার্চ রাতে কাজলকে অপহরণ করা হয়েছে অভিযোগ এনে চকবাজার থানায় মামলা করেন তার ছেলে মনোরম পলক।

ঢাকা থেকে নিখোঁজের ৫৩ দিন পর গত ২ মে রাতে যশোরের বেনাপোলের ভারতীয় সীমান্ত সাদিপুর থেকে অনুপ্রবেশের দায়ে ফ‌টো সাংবাদিক ও দৈনিক পক্ষকালের সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কাজলকে আটক করে বিজিবি।

পর‌দিন (০৩ মে) অনুপ্রবেশের দায়ে বিজিবির দায়ের করা মামলায় আদালতে সাংবাদিক কাজলের জামিন মঞ্জুর হলেও পরবর্তীতে কোতোয়ালি মডেল থানায় ৫৪ ধারায় অপর একটি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।