চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সহজে মাঠে নামা হচ্ছে না নেইমারের

এই তো সেদিন শুরু হলো ফ্রেঞ্চ লিগের নতুন মৌসুম। মাত্র ৫টি ম্যাচ খেলেছে লিগের চ্যাম্পিয়ন দল পিএসজি। লিগ শেষ করতে হলে যেখানে যেতে হবে অনেকটা পথ তার আগেই তাদের জন্য দুঃসংবাদ, চোট আর নিষেধাজ্ঞা মিলিয়ে হয়তো ২০২০ সালের বাকিটা সময় মূল ফরোয়ার্ড নেইমারকে হয়তো দলে পাওয়া হবে না তাদের!
সোমবার রেইসের বিপক্ষে মাউরো ইকার্দির জোড়া গোলে ২-০ ব্যবধানে জয় পায় পিএসজি। প্রথম দুই ম্যাচ হারের পর টানা তিন ম্যাচ জিতে ফেরে কক্ষেপথে। কিন্তু সেই ম্যাচেও অস্বস্তি হয়ে এসেছেন নেইমার, আবারও পেয়েছেন চোট। রেইসের বিপক্ষে ম্যাচে একটা পর্যায়ে চোটের কারণে মাঠও ছাড়তে হয়েছে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডকে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

চোট কতটা গুরুতর সেটা জানা যায়নি। চোটের চেয়ে এখন যা বেশি গুরুত্বপূর্ণ তা হলো বর্ণবিদ্বেষের দায়ে নিষেধাজ্ঞার ধাক্কা। লিগের দ্বিতীয় ম্যাচে মার্শেইয়ের ডিফেন্ডার আলভারো গঞ্জালেজের বিরুদ্ধে যেমন বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ এনেছিলেন নেইমার ঠিক একই অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধেও। মার্শেই কোচ আন্দ্রে ভিলাস বোয়াসের দাবি স্টেডিয়ামের টানেলে তাদের জাপানি ডিফেন্ডার হিরোকি সাকাইকে ‘চাইনিজ মল’ বলে গালি দিয়েছেন নেইমার।

বিজ্ঞাপন

নেইমার আসলে দোষী কিনা সেটা জানা যাবে বুধবার ফ্রেঞ্চ ফেডারেশনের ডিসিপ্লিনারী কমিটির সভা শেষে। সেই সভা শেষে নেইমারকে বানর বলার অভিযোগে আলভারো গঞ্জালেজের শাস্তি হতে পারে ১০ ম্যাচ নিষেধাজ্ঞা। নেইমারের জন্য জমে আছে আরও বড় শাস্তি, তাকে ২০ ম্যাচও নিষিদ্ধ করতে পারে লিগ কমিটি। চোট আর নিষেধাজ্ঞা মিলিয়ে তাকে ২০২০ সালের বাকিটা হয়তো মাঠে নাও দেখা যেতে পারে বিশ্বের দামী ফুটবলারকে।