চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘সরকারকে ইসলামের সঙ্গে সমঝোতা করে চলতে হবে, না হয় কঠিন পরিণতি’

হেফাজতে ইসলামের আমীর মাওলানা জুনায়েদ বাবু নগরী বলেছেন, লকডাউনের নামে মাদরাসা হেফজখানা নুরানিসহ অন্যান্য কওমি মাদরাসা বন্ধ করা যাবে না। সরকারকে ইসলামের সঙ্গে সমঝোতা করে চলতে হবে, না হলে কঠিন পরিণতি বলেও জানান তিনি।

আজ রোববার বিকেলে হাটহাজারী মঈনুল ইসলাম মাদরাসা মিলনায়তনে আয়োজিত জরুরী সভা পরবর্তী সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এ  কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘লকডাউন সরকারের যেখানে খুশি সেখানে দিক। কিন্তু লকডাউনের নামে মাদরাসা হেফজখানা নুরানিসহ অন্যান্য কওমি মাদরাসা বন্ধ করা যাবে না। করোনা এসব মাদরাসায় আসে না। কারণ এখানে ছাত্ররা কোরআন-হাদিস পাঠ করে। যারা করোনা থেকে বেশি বাঁচতে চেষ্টা করছে তারাই বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। যদিও এটা বলা ঠিক না, আল্লাহর রহমতে এখনো কোনো মাদরাসা ছাত্র কিংবা বড় আলেম করোনা আক্রান্ত হয়নি।’

এ সময় বাবুনগরী বলেন, ‘করোনার দোহাই দিয়ে সরকার মাদরাসা-মসজিদ বন্ধ করার জন্য চেষ্টা করছে। আমরা স্পষ্ট করে বলছি, মসজিদে মুসল্লি সংখ্যা নির্ধারণ করে দেয়া যাবে না, রমজানে ইতিকাফ ও তারাবি বন্ধ করা যাবে না। রমজান মাসে কওমি মাদরাসায় একটা কালেকশন (অনুদান সংগ্রহ) হয়। ওই কালেকশন দিয়ে মাদরাসা সারাবছর চলে। লকডাউন দিয়ে সরকার কালেকশন বন্ধেরও চেষ্টা করছে।’

হেফাজত আমির সরকারের প্রতি দাবি জানিয়ে বলেন, ‘আমাদের মাদরাসায় পুলিশ নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে। এগুলো বন্ধ করতে হবে। গ্রেফতার ও মামলা দায়ের বন্ধ করতে হবে। আমরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করেছি। সরকার আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে গুলি চালিয়েছে। এসব বন্ধ না করলে ভবিষ্যতে কঠিন পরিণতি হবে।’

সরকার সারাদেশে র‍্যাব পুলিশ দিয়ে বিভিন্ন মাদরাসার শিক্ষক ,ছাত্র, তৌহিদী জনতা ও নিরীহ মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। অবিলম্বে সাম্প্রতিক ঘটনায় গ্রেপ্তারদের নিঃশর্ত মুক্তি ও সব মামলা প্রতাহারের দাবী জানান।

হেফাজত আমির বলেন, ‘আমরা সরকারবিরোধী নই। সরকারের সঙ্গে আমরা যুদ্ধ করব না। তাছাড়া সরকার পতন আমাদের উদ্দেশ্য নয়। তারা প্রয়োজনে আরও দুইশ’ বছর ক্ষমতায় থাকুক। এতে আমাদের কোনো সমস্যা নেই। তবে সরকারকে ইসলামের সঙ্গে সমঝোতা করে চলতে হবে। না হয় কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে আগামী ২৯ মে হাটহাজারীতে জাতীয় ওলামা মাশায়েক সম্মেলন কর্মসুচী ঘোষনা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে হেফাজতে ইসলামের প্রধান উপদেষ্টা মাওলানা মহিবুল্লাহ বাবুনগরী,যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা নাসির উদ্দীন মুনিরী,জোনায়েদ আল হাবিব ও সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী উপস্হিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন