চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সম্পত্তিতে নারীকে সমঅধিকার দিলো প্রথম আরব দেশ

উত্তরাধিকার সম্পত্তিতে নারীকে সমান অধিকার দেয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে তিউনিশিয়া। প্রথম আরব দেশ হিসেবে এমন ঘোষণা দিয়ে ইতিহাস তৈরি করেছে দেশটি।

বিজ্ঞাপন

তিউনিশিয়ার ক্যাবিনেটে শুক্রবার এ বিষয়ক একটি আইনের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সেটি অনুসারে, উত্তরাধিকার সূত্রে এখন থেকে পরিবারে নারী ও পুরুষ সদস্য সমপরিমাণ সম্পত্তি পাবে, ইসলামিক আইন থেকে যা ব্যতিক্রম।

বিতর্কিত এই আইনটি কার্যকর হওয়ার আগে দেশটির পার্লামেন্টে যাচাই বাছাই শেষে পাস হতে হবে।

২০১৭ সালের আগস্টে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে তিউনিশিয়ার প্রেসিডেন্ট বেজি কাইদ এসেবসি প্রথম এমন একটি আইন প্রণয়নের ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন।

বহু মুসলিম এই আইনের প্রতিবাদ করছেন। কারণ এটি পবিত্র কোরআনে বর্ণিত বিধানের বিরুদ্ধে যায়। কোরআনে বলা হয়েছে, একজন পুরুষ দু’জন নারীর সমান সম্পত্তি পাবে।

তবে এসেবসির মতে, উত্তরাধিকার বিষয়ে শরিয়াহ আইন অনুসরণ করবে কি করবে না, সেই সিদ্ধান্ত নেয়ার সুযোগ নাগরিকদের থাকা উচিত। এটি আরোপ করে দেয়া ঠিক নয়।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও ওই সময়েই এসেবসি ‘ব্যক্তি স্বাধীনতা ও সমতা কমিটি’ নামে একটি কমিটি গঠন করেছিলেন। ওই কমিটির দায়িত্ব ছিল তিউনিশিয়ার জনগণকে আরও বেশি স্বাধীনতা দেয়ার উদ্দেশ্যে দেশটির আইনি ব্যবস্থায় প্রয়োজনীয় সংস্কার প্রস্তাব করতে।

তিউনিশিয়া তুলনামূলক প্রগতিশীল একটি আরব দেশ। সেই প্রগতিশীলতাকে এগিয়ে নিতে চান বলে মন্তব্য করেন প্রেসিডেন্ট এসেবসি।

তার ভাষায়, জেন্ডার সমতার আইনটির মধ্য দিয়ে দেশের সংবিধান মোতাবেকই জনগণের অধিকার নিশ্চিত করতে চান তিনি। কেননা সংবিধানে বলা আছে, তিউনিশিয়া রাষ্ট্রটি নাগরিকত্ব, জনগণের ইচ্ছা এবং আইনের আধিপত্য – এই তিনটি উপাদানের ভিত্তিতে গঠিত।

কিন্তু এসেবসি যতই জনগণের জন্য জেন্ডার সমতার ওপর জোর দিন, ২০১৭ সালে তার বক্তব্যের পর ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট পরিচালিত এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ৬৩ শতাংশ তিনিশিয়ান, যার ৫২ শতাংশই নারী – সম্পত্তিতে সমঅধিকারের বিরোধী।

Bellow Post-Green View