চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সমুদ্রের নিচে ক্রীতদাসের বেড়ি

ক্লিফটন উপকূলে যারা বেড়াতে আসত তারা জানত না যে এখানে এতবড় রহস্য লুকিয়ে আছে । এমনকি স্থানীয়রাও জানত না । প্রায় ২০০ বছর ধরে দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউনের ক্লিফটন উপকূলে ডুবে ছিল একটি পর্তুগিজ ক্রীতদাস জাহাজ। ইজিকো জাদুঘরের সমুদ্র প্রত্নতত্ত্ববিদ জ্যাকো বোশঅফ বলেন, সমুদ্র উপকূল থেকে ৫০-৬০ মিটার দূরে থাকায় নাবিক প্রাণপন চেষ্টা করেও সফল হয়নি । একটি বড় রান্নার পাত্রে ২০০-২১১ জন ক্রীতদাস ছিল ঢেউয়ের আঘাতে জাহাজটি যখন ভেঙে ডুবে গেল তখন অনেকেই মারা যায়। সাও জোস ক্রীতদাস জাহাজটি ডুবে যাওয়ার বিষয়ে ২০০৮ সাল থেকে গবেষণা করে আসছে বোশঅফ। ডাচ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির তথ্য মতে জাহাজটি ডুবেছিল ক্যাম্পস বেতে। আর্কাইভ এবং রের্কড দেখে বোশঅফ ও দল জাহাজটির ধ্বংসাবশেষ খোঁজার অনুমতি পান। অনুসন্ধানকারী ডুবুরিরা প্রথম খুঁজে পেয়েছিল লোহার ব্যালাস্ট ব্লক। ধারণা করা হচ্ছে সাও জোস জাহাজে প্রায় ৫০০ জন ক্রীতদাস ছিল। যাদের বেশির ভগের হাত-পায়ে বেড়ি ছিল। জাহাজটি ডুবার সময় অনেক বেড়ি খুলে দেওয়া সম্ভব হয়নি। ডুবে যাওয়া জাহাজের ধ্বংসাবশেষ থেকে তিন-চারটি শেকল পাওয়া গিয়েছিল। এখন বোশঅফের মূল গবেষণা সে সময় জাহাজ ডুবির পরপর কোন ক্রীতদাস আদৌও বাঁচতে পেরেছিলেন কিনা। আর যদি কেউ বেঁচেও থাকে তবে তাদের বংশধরদের খুঁজে পাওয়া ।

Advertisement