চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সন্ধ্যায় বনানী কবরস্থানে হবে আবদুল কাদেরের দাফন

শনিবার সন্ধ্যায় অভিনেতা আবদুল কাদেরের দাফন হবে বনানী কবরস্থানে। এরআগে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তার মরদেহ রাখা হবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে।

চ্যানেল আই অনলাইনকে এমনটাই জানিয়েছেন অভিনেতার পুত্রবধূ জাহিদা ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

শনিবার সকাল সোয়া ১১টায় তিনি বলেন, এখন আমরা মোহাম্মদপুর আছি, এখানে বাবাকে গোসল দেয়া হচ্ছে। এরপর আমরা তাকে নিয়ে যাবো মিরপুর ডিওএইচএস এর বাসায়। সেখানে আত্মীয় স্বজনরা অপেক্ষায় আছেন।

তিনি বলেন, ঘন্টা দুয়েক বাসায় রাখার পর আবদুল কাদেরকে সাড়ে তিনটার মধ্যে নিয়ে যাওয়া হবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে। সেখানে ঘন্টা খানেক তার মরদেহ রাখা হবে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য। এরপর নিয়ে যাওয়া হবে বনানী কবরস্থানে। সেখানে জানাজা শেষে দাফন করা হবে।

বিজ্ঞাপন

শনিবার সকাল ৮টা ২০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ক্যানসার আক্রান্ত অভিনেতা আবদুল কাদের।

তার মৃত্যুতে অভিনয় জগতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী।

ব্যাক পেইন নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ভুগছিলেন আবদুল কাদের। উন্নত চিকিৎসার জন্য গেল ৮ ডিসেম্বর চেন্নাইয়ে নিয়ে যাওয়া হয় এই অভিনেতাকে। সেখানকার হাসপাতালেই ১৫ ডিসেম্বর ক্যানসার আক্রান্তের খবর জানতে পারেন তিনি ও তার পরিবার। শুধু তাই নয়, জানা যায় ক্যানসার চতুর্থ স্তরে। সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়েছে।

শারীরিক দুর্বলতার কারণে কেমোথেরাপি না দিয়েই আবদুল কাদেরকে ২০ ডিসেম্বর দেশে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নেন তার পরিবার। দেশে ফিরে এদিনই ভর্তি করানো হয় রাজধানীর বেসরকারি একটি হাসপাতালে। এরপর থেকে সেখানেই চিকিৎসা চলছিলো তার।

কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের লেখা ‘কোথাও কেউ নেই’ ধারাবাহিক নাটকে বদি চরিত্রে অভিনয় করে পরিচিতি পান আবদুল কাদের। নাটক, চলচ্চিত্রের পাশাপাশি বেশ কিছু বিজ্ঞাপনচিত্রেও দেখা গেছে তাকে। থিয়েটারেও সরব ছিলেন তিনি। তার উল্লেখযোগ্য মঞ্চনাটক পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়, এখনও ক্রীতদাস, তোমরাই, স্পর্ধা, দুই বোন, মেরাজ ফকিরের মা ইত্যাদি।

বিজ্ঞাপন