চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সন্ধ্যার আলোয় ‘গোলাপি সর্ষেফুল’ দেখল অস্ট্রেলিয়া

মাত্র ২৫ বলের মধ্যে ভারতকে অলআউট করে দিনের শুরুটা দারুণভাবে করেছিল অস্ট্রেলিয়া। তখন কে জানতো ওটাই বুমেরাং হয়ে ফিরে আসবে! অ্যাডিলেডে ভারতীয়দের বিষাক্ত বাণে নাকাল হতে হয়েছে তাদের ব্যাটসম্যানদের। তাতে দিনের শুরুটা ছিল যেমন হাসির, সন্ধ্যার শেষে অজিদের মুখ হয়েছে ভার।

২৩৩ রানে দ্বিতীয় দিনের শুরু করা ভারত ১১ রান তুলতেই হারায় শেষ ৪ উইকেট। শেষ পর্যন্ত ওই ২৪৪ সংগ্রহ নিয়েই ৫৩ রানের লিড পেয়েছে বিরাট কোহলির দল। রবিচন্দ্র অশ্বিনের গোলাপি ঘূর্ণিতে কাত হয়ে ১৯১ রানে শেষ অজিদের প্রথম ইনিংস।

বিজ্ঞাপন

দিনের প্রথম ওভারে কোনো রান যোগ হওয়ার আগেই ১৫ রান করা অশ্বিনকে উইকেটের পেছনে অধিনায়ক টিম পেইনের ক্যাচ বানান প্যাট কামিন্স। পরের ওভারে স্টার্কের বলে একইভাবে ফেরেন আগের দিনের আরেক অপরাজিত ব্যাটসম্যান ঋদ্ধিমান সাহা।

দুই ওভার পরে উমেশ যাদব ও মোহাম্মদ শামিকে তুলে ভারতের ইনিংস ঝটপট শেষ করেন স্টার্ক ও কামিন্স। প্রতিপক্ষের সাত ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়েছেন দুই পেসার। ৪ উইকেট নিয়েছেন স্টার্ক, ৩ উইকেট শিকার কামিন্সের। জস হ্যাজেলউড ও নাথান লায়ন নিয়েছেন বাকি দুই উইকেট।

ডেভিড ওয়ার্নার না থাকায় টেস্টে জো বার্নসের সঙ্গী হন টি-টুয়েন্টিতে দুই ফিফটি পাওয়া ম্যাথু ওয়েড। টেস্ট মেজাজে খেলে ১৪ ওভারে মাত্র ১৬ রান তোলেন দুই ওপেনার।

শামুক গতিতে চলতে থাকা দুই ওপেনারকে পরপর দুই ওভারে এলবিডব্লিউ করে ফেরান জাসপ্রিত বুমরাহ। কাকতালীয়ভাবে দুজনেই আউট হয়েছেন ৮ রান করে।

বিজ্ঞাপন

বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি টেস্টের সেরা ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথও। ২৯ বলে ১ রান তুলে অশ্বিনের বলে আজিঙ্কা রাহানেকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন অজিদের সাবেক অধিনায়ক।

স্মিথকে ফিরিয়ে ঝড় তোলেন অশ্বিন। তার বলের জবাব বের করতে ব্যর্থ হয়ে দ্রুত ফিরে যান ট্রাভিস হেড ও ক্যামেরন গ্রিন। ৭ রান করা হেড ক্যাচ দিয়েছেন সোজা বোলারের হাতে, আর ১১ রান করা অভিষিক্ত গ্রিনের ক্যাচ নিয়েছেন অধিনায়ক কোহলি।

দুবার জীবন পেয়ে ইনিংস বড় করতে পারেননি মার্নাস লাবুশেন। নড়বড়ে শুরু করে দুবার ক্যাচ দিয়ে বেঁচে যাওয়া ব্যাটসম্যান শেষ পর্যন্ত ১১৯ বলে ৪৭ করে আউট হয়েছেন উমেশের বলে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পরে।

তিন বল পর রানের খাতা না খুলেই ফিরে যান কামিন্স। ১১১ রানে নিজেদের সপ্তম উইকেটের পতন দেখে স্বাগতিকরা।

লেজের ব্যাটসম্যানদের নিয়ে লড়াই চালিয়ে গেলেও ভারতের লিড নেয়া আটকাতে পারেননি অধিনায়ক টিম পেইন। ৭৩ রান করা অধিনায়কের ইনিংসটিই ছিল স্বাগতিকদের একমাত্র লড়াকু প্রতিরোধ।

দুই ওপেনারকে তুলে নিয়ে প্রতিপক্ষের ভাঙনটা শুরু করেন বুমরাহ। মাঝখানে ৪ উইকেট নিয়ে মেরুদণ্ড ভেঙেছেন স্পিনার অশ্বিন। আর লেজ ছেঁটে ৩ উইকেট পেয়েছেন আরেক পেসার উমেশ যাদব।

৫৩ রানের লিডের সঙ্গে আরও ৯ রান যোগ করতে ওপেনার পৃথ্বী শকে হারিয়ে দিন শেষ করেছে ভারত। প্রথম ইনিংসের মতো এবারও বোল্ড পৃথ্বী। এবার যোগ করে গেছেন ৫ রান আর আউট হয়েছেন কামিন্সের বলে!