চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সন্তান না নেয়ায় ছেলে ও ছেলের বউকে আদালতে নিলেন বাবা-মা

এক বছরের মধ্যে ছেলে এবং ছেলের বউকে সন্তান নিতে হবে নয়তো ৬ লাখ ৫০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ দেয়ার দাবিতে ছেলেকে আদালতে নিয়ে গেছেন বৃদ্ধ বাবা-মা। ছেলেকে বিয়ে করানোর ৬ বছর পরেও নাতি-নাতনির মুখ না দেখাতে এই আইনি ব্যবস্থা নিলেন তারা।

আলজাজিরা’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সঞ্জীব এবং সাধনা প্রসাদ বলেন তারা তাদের পাইলট ছেলেকে লালন-পালন ও শিক্ষিত করে এবং একটি জমকালো বিয়ের জন্য টাকা খরচ করে তাদের সকল সঞ্চয় নিঃশেষ করে ফেলেছেন। এখন তারা তা ফেরত চায়।

Reneta June

এই দম্পতি গত সপ্তাহে ভারতের হরিদ্বারের একটি আদালতে দায়ের করা তাদের পিটিশনে বলেছেন, তাদের ছেলে বিয়ের ৬ বছর অতিবাহিত হলেও তারা এখনো সন্তান ধারণের পরিকল্পনা করেনি। তাদের মতে এই বয়সে তাদের কোনো নাতি-নাতনি পাশে থাকলে তাদের একাকি জীবন কাটানো কিছুটা সহজ হবে।

বিজ্ঞাপন

টাইমস অফ ইন্ডিয়া জানিয়েছে, তারা এই মামলায় যে ক্ষতিপূরণ দাবি করছে তা হল ভারতীয় ৫০ মিলিয়ন রুপি, যার মধ্যে রয়েছে একটি পাঁচ তারকা হোটেলে ছেলের বিবাহের সংবর্ধনার খরচ, ৮০ হাজার ডলার সমমূল্যের একটি বিলাসবহুল গাড়ি এবং বিদেশে নতুন দম্পতির হানিমুনের জন্য অর্থ প্রদান।

এই পিতামাতারা তাদের ছেলেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাইলট হিসেবে প্রশিক্ষণ নেয়ার জন্য ৬৫ হাজার ডলার খরচ করেছেন।

এই বৃদ্ধ দম্পতি তাদের আবেদনে বলেন, ‘আমাদের বাড়ি তৈরির জন্যও ঋণ নিতে হয়েছিল আর এখন আমরা অনেক আর্থিক কষ্টের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। মানসিকভাবেও আমরা বেশ বিরক্ত কারণ আমরা একা থাকি।’

দম্পতির আইনজীবী অরবিন্দ কুমার জানান উত্তর ভারতের আদালতে আগামী ১৭ মে তাদের আবেদনটির শুনানি হবে।

ভারতে বহু আগে থেকেই যৌথ পরিবার ব্যবস্থা লক্ষ্যণীয় এর কারণে পরিবারের সবাই একসাথে বসবাস করে থাকে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে এই যৌথ পরিবার ব্যবস্থা ভেঙে যেতে দেখা যায় এবং তরুণ দম্পতিদের পরিবারের সাথে থাকা, সন্তান ধারণ, পালনের চাইতে নিজেদের ক্যারিয়ার নিয়ে উদ্বিগ্ন হতে দেখা যায় বেশি।