চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সচল জার্মান যন্ত্র, মুক্তি লো’র

বেলজিয়ামের জয়ের রাতে হেরেছে ক্রোয়েশিয়া

বিশ্বকাপের পর থেকেই চাপে ছিলেন কোচ জোয়াকিম লো। নেশনস লিগের ব্যর্থতায় চাপ আরো বাড়ে। ইউরোর বাছাইপর্ব শুরুর আগে তাই ঘোষণা দিয়ে শুরু করেছিলেন, এবার নতুন জার্মানিকে দেখা যাবে। জেরোম বোয়াটেং ও ম্যাটস হামেলসকে জার্মানি জাতীয় দলে ভবিষ্যতে খেলার ব্যাপারে স্রেফ ‘না’ বলে দিয়েছেন।তার দলে ঠাঁই পেয়েছে একঝাঁক নতুন মুখ। যদিও জার্মানদের কথিত সেই ‘নতুন যুগ’ শুরু হয় ড্র দিয়ে।

নিজের সিদ্ধান্তকে যথার্থ প্রমাণের চ্যালেঞ্জের মুখে ও ইউরো বাছাইপর্বে নামার আগে গত বুধবার জার্মানরা প্রীতি ম্যাচে সার্বিয়ার বিপক্ষে ১- ১ গোলে ড্র করে। ভল্ফসবুর্গের এ ম্যাচ দিয়ে ২০১৯ সালের শুভসূচনা করতে চাইলেও শেষ পর্যন্ত লো’র দল সমতা নিয়ে মাঠ ছেড়েছে।

বিজ্ঞাপন

তবে আবার সচল হয়েছে জার্মান যন্ত্র। মুক্তি পেয়েছেন কোচ লো’ও। নেশনস লিগে যে নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে দুই গোলে এগিয়ে গিয়েও ড্র করতে হয়েছিল জার্মানিকে, সেই ডাচদের তাদেরই ঘরের মাঠে হারিয়ে উয়েফা ইউরো-২০২০’র বাছাইপর্ব শুরু করেছে সানে-রিউসরা।

নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে শুরুতে সেই দুর্দান্ত জার্মানির দেখা মিললেও, ‘নতুন’ নেদারল্যান্ডসে আবার ধরা খেতে বসেছিল। ২-২ গোলের ড্রটাও অবশ্য খুব খারাপ ফল হত না জার্মানদের জন্য। কিন্তু ডাচরা যেভাবে চোখ রাঙাচ্ছিল তাতে হেরেও বসতে পারত জার্মানি। শেষ পর্যন্ত ঘটেছে উল্টোটা। ৯০ মিনিটে নেদারল্যান্ডসকে চমকে দিয়ে জার্মানরাই হাসে শেষ হাসি। ইউরোর বাছাইপর্বে গ্রুপ ‘সি’ এর জার্মানি-নেদারল্যান্ডস ম্যাচ তাই শেষ হয় ২-৩ গোলে।

বিজ্ঞাপন

নেদারল্যান্ডসের মাঠে এর চেয়ে ভালো শুরুর আশা করতে পারত না জার্মানরা। ১৫ মিনিটে নিকো শুলজের ক্রস থেকে বল পেয়ে আড়াআড়ি শটে গোল করে জার্মানিকে দারুণ শুরু এনে দেন ম্যানচেস্টার সিটি তারকা। জার্মানির আনন্দ দ্বিগুণ হতেও বেশি সময় লাগেনি। সার্জ গ্যানাব্রি ভার্জিল ভ্যান ডাইককে ফাঁকি দিয়ে ডানদিক থেকে কাটিয়ে ঢুকে পড়েছিলেন ডি-বক্সের মাথায়। সেখান থেকে দুর্দান্ত এক ফিনিশে গোল করে ৩৪ মিনিটেই জার্মানিকে জয়ের স্বপ্ন দেখাতে থাকেন তিনি।

প্রথমার্ধে ডাচ গোলরক্ষক সিলেসেন আরও দুইবার সানেকে আটকে না দিলে বিরতিটা আরও অস্বস্তিকর হতে পারত ডাচদের জন্য।

কয়েকমাস আগে এই দুইদলের শেষ দেখায় প্রথমার্ধে দুই গোলে পিছিয়ে পড়েও নেদারল্যান্ডস ২-২ গোলে ড্র করেছিল সেই ম্যাচ। দ্বিতীয়ার্ধে তাদের দরকার ছিল দ্রুত গোল। সেটাও হয়ে গেল ৪৮ মিনিটেই। মেম্ফিস ডিপাইয়ের ক্রস থেকে মাথা ছুঁয়ে গোল করেন ডি লিংট। তাকে দিয়ে গোল করানোর পর ডিপাই নিজেও ৬৩ মিনিটে গোল করে স্কোরলাইন বানিয়ে ফেলেন ২-২।

মার্কো রিউসকে এই ম্যাচেও বেঞ্চে বসিয়ে রেখেছিলেন লো। বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের অধিনায়ককে মাঠে নামিয়েছিলেন ৮৮ মিনিটে। তারও আগে নেমেছিলেন ইলকায় গুন্ডোয়ান। দুই বদলি মিলেই আক্রমণটা শুরু করেন। একটি কাউন্টার অ্যাটাক ধরে গুন্ডোয়ান বামদিকে পাঠিয়েছিলেন রিউসকে। তিনি ডি-বক্সের ভেতর করেন নিচু ক্রস। নিকো শুলজ দৌড়ে গিয়ে পেনাল্টি স্পটের কাছাকাছি জায়গা থেকে বাম পায়ের শটে গোল করে ২৩ বছর পর নেদারল্যান্ডসের মাঠে জয় এনে দেন জার্মানিকে।

রাতের অন্য ম্যাচে বেলারুশকে ২-১ গোলে নর্দান আয়ারল্যান্ড, হাঙ্গেরি একই ব্যবধানে ক্রোয়েশিয়াকে, স্লোভাকিয়াকে ১-০ গোলে গ্যারেথ বেলের ওয়েলস, ইসরায়েল ৪-২ গোলে অস্ট্রিয়াকে, পোল্যান্ড ২-০ গোলে লাটভিয়াকে, রাশিয়া ৪-০ গোলে কাজাকস্তানকে, স্কটল্যান্ড ২-০ গোলে সান মেরিনোকে এবং বেলজিয়াম ২-০ গোলে সাইপ্রাসকে হারায়। এছাড়া স্লোভেনিয়া ও নর্থ মেসিডোনিয়া ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়।

Bellow Post-Green View