চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সংবাদকর্মীদের ভিড় ঠেলে এনসিবি দফতরে রিয়া, ক্ষুব্ধ বলিউডের একাংশ

রবিবার রিয়া চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয় এনসিবি দফতরে। দুপুর ১২টা নাগাদ এনসিবির দফতরে পৌঁছান রিয়া। মুম্বাই পুলিশ রিয়াকে ঘিরে থাকা সত্ত্বেও সংবাদকর্মীদের ভিড় ঠেলে এনসিবি দফতরে পৌঁছাতে হিমশিম খেতে হয় রিয়ার। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া বেশ কিছু ভিডিওতে এই দৃশ্য ধরা পড়েছে।

রিয়ার এই হয়রানির শিকার হওয়ার ভিডিওগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বলিউডের বেশ কয়েকজন তারকা। সংবাদকর্মীদের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

শিবানী দান্ডেকর ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘মিডিয়ার শকুনেরা। বর্বর আচরণ করছে তারা। এমন কেউ নেই যে এটাকে থামাতে পারে।’

বিজ্ঞাপন

অভিনেত্রী গওহর খান টুইটারে লিখেছেন, ‘খুব জঘন্য আসামীর সঙ্গেও তো এরকম আচরণ করা হয়না! রিয়ার সঙ্গে মিডিয়ার এধরনের আচরণ খুবই জঘন্য ও লজ্জার।’

নির্মাতা হংসল মেহতা ভিডিও শেয়ার করে প্রশ্ন তুলেছেন সামাজিক দূরত্ব নিয়ে। করোনাভাইরাসের এই সময়ে এত মানুষ একসাথে কেন হয়েছে সেই ব্যাপারে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

অভিনেত্রী কারিশমা তান্নাও একই বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘বাহ, দারুণ ভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে!’

প্রযোজক মনিষ মুন্দ্র টুইট করেছেন, ‘খুবই খারাপ হলো! এরকম কারও সঙ্গেই হওয়া উচিত নয়। এসব শেষ হওয়া উচিত। আমাদের দেশটা কোথায় যাচ্ছে? কোনো সভ্য জাতি তো এরকম আচরণ করতে পারে না। বিচার হোক কিন্তু পথে ঘাটে কেন বিচার করা হচ্ছে?’

মাদক মামলায় ৬ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে রিয়াকে। এর আগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে রিয়ার ভাই সৌভিক চক্রবর্তী ও সুশান্তের হাউজ ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডাকে। তাদেরকে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এনসিবির হেফাজতে রাখা হবে।