চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শ্রীলঙ্কা সফরের সূচি চূড়ান্ত হলেই ক্রিকেটারদের করোনা টেস্ট

বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা সফর অনেকটাই নিশ্চিত। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আশা করছে এই সপ্তাহেই চূড়ান্ত হয়ে যাবে সফরের সূচি। দিনক্ষণ ঠিক হয়ে গেলেই টাইগার ক্রিকেটারদের নিয়ে বিসিবি শুরু করবে আবাসিক ক্যাম্প। তার আগে করোনা পরীক্ষা হবে সকলের।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি জাতীয় দলের ফুটবলারদের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সর্বশেষ দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার কথা থাকা ২৪ ফুটবলারের মধ্যে ১৮ জনই করোনা আক্রান্ত। বিষয়টি ভাবনায় ফেলেছে অন্যান্য ফেডারেশন কর্তাদেরও।

বিজ্ঞাপন

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ‘পুরো দলের মাঝে একজন করোনা আক্রান্ত হলেই সেটি কিন্তু ভয়ের কারণ। কেননা তার মাধ্যমে এটি অন্যদেরও মাঝেও সেটি ছড়াতে পারে। এজন্য আমরা খেলা ফেরাতে তাড়াহুড়া করিনি। সবসময় সতর্ক ও পরিস্থিতি বুঝতে চেষ্টা করেছি। এখনো তাড়াহুড়ার কোনো সুযোগ নেই। ক্রিকেটারদের করোনা টেস্ট আমাদের পরিকল্পনারই অংশ। শ্রীলঙ্কা সিরিজ চূড়ান্ত হলেই যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় আমরা ক্রিকেটারদের টেস্ট করাবো।’

বিসিবি সিইও নিজাম উদ্দিন চৌধুরী

‘শুধু ক্রিকেটার কোচ নয়; তাদের সহযোগিতা করার জন্য প্রত্যক্ষভাবে যত মানুষ কাজ করবে সবার করোনা পরীক্ষা করা হবে। তাদের খাবার সরবরাহকারী, টিম বয়, মাঠকর্মী থেকে শুরু করে যাদেরই নিয়মিত খেলোয়াড়-কোচদের কাছাকাছি আসার প্রয়োজন পড়বে তাদের সবারই পরীক্ষা নেওয়া হবে। আশা করছি এক সপ্তাহের মধ্যই স্বাগতিক দেশের ক্রিকেট বোর্ড সূচি চূড়ান্ত করবে। তারপরই আমরা করোনা টেস্ট করিয়ে খেলোয়াড়দের ক্যাম্পে আনব।’

‘আবাসিক ক্যাম্পের কথাই আমরা ভাবছি। একাডেমি ভবন বা হোটেলে থাকবে তারা। ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করছি। তারা খেলোয়াড়দের কীভাবে নিরাপদ রেখেছে সেটিও আমরা জানার চেষ্টা করছি। সার্বিক দিক বিচার-বিশ্লেষণ করে আমাদের সাধ্য অনুযায়ী চেষ্টা করবো সবাইকে সুরক্ষিত রাখতে।’‍

করোনাভাইরাসের কারণে জুলাইয়ের তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ পিছিয়ে হতে যাচ্ছে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে। শ্রীলঙ্কায় করোনা পরিস্থিতি ভালো থাকায় তাদের ক্রিকেট বোর্ড অনেক আগেই ক্রিকেটারদের জন্য আবাসিক প্রস্তুতি ক্যাম্পের আয়োজন করেছে।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচে খেলতে নামার আগে টাইগার ক্রিকেটাররাও যেন পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নিতে পারে সে দিকটি গুরুত্ব সহকারে দেখছে বিসিবি। এজন্য অনেকটা পিছিয়ে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরায় আগ্রহ দেখিয়েছে বোর্ড।

জুলাইয়ে বাংলাদেশকে শ্রীলঙ্কার আতিথেয়তা দেওয়ার ইচ্ছে থাকলেও করোনা পরিস্থিতিতে ঝুঁকি নিতে রাজি হয়নি বিসিবি। করোনা সংক্রমণ রোধে এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে আছে শ্রীলঙ্কা। সম্প্রতি বাংলাদেশেও প্রকোপ কিছুটা কমে আসায় অন্ধকার সরিয়ে স্থগিত হয়ে যাওয়া সিরিজটি দেখতে যাচ্ছে আলোর মুখ।