চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শেষ হলো এশিয়া ফার্মা এক্সপো

বিশ্ববিখ্যাত ওষুধ প্রস্ততকারী কোম্পানির অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে শেষ হলো অষ্টম এশিয়া ফার্মা এক্সপো। ওষুধ শিল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাংলাদেশ ওষুধশিল্প সমিতির উদ্যোগে ঢাকায় তিনদিনের এই মেলার মধ্য দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও মূল্যবান অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে বাংলাদেশ।

এশিয়া ফার্মা এক্সপো-২০১৬ তে অংশ নেয় ৮০ টির বেশি দেশের চার শতাধিক ওষুধ প্রস্ততকারি কোম্পানি। মেলায় অংশ নেয়া বিশ্ববিখ্যাত কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে দেশীয় বিশেষজ্ঞ থেকে উদ্যোক্তা সব পর্যায়ের সংশ্লিষ্টরা মূল্যবান অভিজ্ঞতা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা। বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির মহাসচিব এস এম শফিউজ্জামান বলেন, এটা থেকে আমরা শিখতে পারি এবং শিখলে আমাদের দেশের প্রোডাক্ট ভালো চলবে, দেশের মানুষ কোয়ালিটি মেডিসিন পাবে এবং বিদেশে আমাদের রপ্তানী বাড়বে।

ওষুধ শিল্পের প্রচার-প্রসারে সরকারের আন্তরিকতার অভাব নেই বলেই মনে করেন ওষুধশিল্প সংশ্লিষ্টরা। তবে আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে তাল মেলাতে সরকারের আরো সুচিন্তিত ও কার্যকরী পদক্ষেপও প্রত্যাশা করেন তারা।

Advertisement

বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতি উপদেষ্টা আব্দুল মুক্তাদির বলেন, সরকারের যে ল্যাবোটরী ও সরকারের নিয়ন্ত্রক যে প্রতিষ্ঠান এই দুইটি প্রতিষ্ঠান যদি ডাব্লিওএইচও এবং পিআইসিও এপ্রোভাল পায় তাহলে আমরা আমাদের দেশের ওষুধ সরাসরি ৭০টি দেশে রপ্তানি করার সুয়োগ পাবো।

তিনি আরো বলেন, এখানে সরকার এখনো আন্তরিকে চেষ্টা করছে তবে আমি মনে করি, এটা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করা উচিত।

যা একটি অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ওষুধ শিল্প উদ্যোক্তারা আশা করছেন, আগামী ৫ বছরের মধ্যে দেশের শীর্ষ রপ্তানি আয়ের খাত হবে ওষুধ শিল্প।