চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শেষ আটে বার্সা, মুখোমুখি বায়ার্নের

নাপোলিকে উড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আটে জায়গা করে নিয়েছে বার্সেলোনা। কোয়ার্টার ফাইনালে মেসি-সুয়ারেজরা মুখোমুখি হবে বুন্দেসলিগা জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখের।

ন্যু ক্যাম্পে শনিবার রাতে শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে নাপোলিকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা। প্রথম লেগে নাপোলির মাঠ থেকে ১-১ গোলে ড্র করে ফিরেছিল স্প্যানিশ জায়ান্টরা। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-২ ফল।

বিজ্ঞাপন

একইরাতে কোয়ার্টারে যাওয়া ও বার্সার প্রতিপক্ষ বায়ার্ন ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চেলসিকে। প্রথম লেগে চেলসির মাঠ থেকে ৩-০তে জিতে এসেছিল বাভারিয়ানরা। দুই লেগ মিলিয়ে ৭-১ ফল।

অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে জোড়া গোল করেছেন রবার্ট লেভানডোভস্কি। অন্য গোল দুটি ইভান পেরিসিচ ও কোরেন্টিন টলিস্সোর। চেলসির একমাত্র গোলটি টামি আব্রাহামের।

বিজ্ঞাপন

ঘরের মাঠে ম্যাচের দশম মিনিটেই খাতা খোলে বার্সা। রাকিটিচের কর্নার থেকে আসা বলে মাথা ছুঁয়ে জালে ঠিকানা বানান ক্লেমেন্ট লেংলেট।

ম্যাচের ২৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন লিওনেল মেসি। প্রতিপক্ষের প্রায় আধাডজন খেলোয়াড়ের জটলার মধ্যে থেকেও সুযোগ বের করে কোনাকুনি শটে জাল খুঁজে নেন স্বাগতিক অধিনায়ক। চলতি উয়েফা আসরে তার তৃতীয় গোল, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ইতিহাসে ১১৫তম।

সেই গোলের রেশ কাটতে না কাটতেই ৩০ মিনিটে ফের গোল করে বসেছিলেন মেসি। কিন্তু ভিএআরে সেটি বাতিল করে দেন রেফারি। রাকিটিচের ক্রস থেকে আসা বল বুকে নিয়ন্ত্রণের সময় তার হাত স্পর্শ করেছিল।

বিরতির ঠিক আগে আগে মেসিকে ফাউল করে পেনাল্টি উপহার দেয় অতিথিরা। কিক নেন লুইস সুয়ারেজ, গোলও করেন।

খানিকবাদে রাকিটিচের মাথাগরম আচরণে পেনাল্টি পায় নাপোলিও। এক গোল শোধ করে বিরতিতে যান লরেঞ্জো ইনসিগনে। মধ্যবিরতির পর ফিরে কোনো দলই আর গোল আদায় করতে পারেনি।