চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শুষ্ক শীতেও ত্বকে থাকবে তারুণ্য

কুয়াশায় মুড়ে একরাশ ভালোলাগা নিয়ে আসে শীতকাল। কিন্তু এই শীতকালেই ত্বকের ক্ষতি হয় সবচেয়ে বেশি। রুক্ষ ও নিস্প্রাণ হয়ে পড়ে ত্বক। ত্বক থেকে চলে যায় স্বাভাবিক ময়েশ্চার। তাই এই সময়ে ত্বক আরো বেশি তারুণ্যময় ও মসৃণ দেখাতে একটু বাড়তি যত্ন আপনাকে নিতেই হবে।

বিজ্ঞাপন

জেনে নিন এই শীতে নিজের ত্বকের যত্নে কিছু বাড়তি টিপস। এসবই আপনাকে আরো সুন্দর থাকতে সাহায্য করবে।

নিয়মিত ত্বক পরিস্কার করুন: হালকা উষ্ণ জল দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করুন। সঙ্গে অবশ্যই একটি ভালো ফেসওয়াশ বেছে নিন। বিশেষ করে এই সময়ে এমন ফেসওয়াশ বেছে নিন যেটা ত্বককে আর্দ্রতা যোগায়।

ত্বক ম্যাসাজ করুন: দিনে অন্তত একবার ত্বক ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। তাহলে ত্বকে রক্ত চলাচল বাড়বে। অবশ্য খালি হাতে নয় কোনো ময়েশ্চারাইজার বা ফেস ক্রিম দিয়ে ত্বক ম্যাসাজ করুন। ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ত্বকে ক্রিম ম্যাসাজ করুন এতে ত্বকের ভেতরে ঠিকঠাক ময়েশ্চারাইজার পৌঁছাবে।

ত্বকের মরা কোষ দূর করুন: শীতকাল এলেই আমরা ত্বকের মরাকোষ দূর করার কথা ভুলে যায়। তবে শীতকালেই সেটা সবচেয়ে বেশি জরুরি। ভালো কোনো এক্সোফলিয়েটিং মাস্ক লাগান মুখে এবং হাতে। তারপর কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন। এক্সোফলিয়েটিং বডি ওয়াশও এক্ষেত্রে বেশ কাজে আসতে পারে।

শীতের সানট্যান রোধ করুন: শীতকালের রোদ হালকা বলেই ঘর থেকে বের হওয়ার সময় সানব্লক ক্রিম নিবেন না, তা যেন না নয়। নিয়মিত সানব্লক ক্রিম লাগান। তবে এসময় ময়েশ্চার আছে এমন সানব্লক বেছে নিন। তাহলে ত্বক যেমন সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে রক্ষা পাবে তেমন ত্বক খানিকটা ময়েশ্চারও পাবে। ত্বক শুষ্ক ও রুক্ষ হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পাবে অনেকটাই।

বিজ্ঞাপন

ঠোঁটের যত্নআত্তি: এই সময়ে ঠোঁটের জন্য একটি ভালো লিপবাম বেছে নিন। সেটাই দিনে ৪-৫বার ব্যবহার করুন। তাহলে ঠোঁট আর্দ্র রাখতে পারবেন।

ভেতর থেকে নিজেকে আর্দ্র করুন: এই সময়ে নিজের খাবার দাবারে খানিকটা পরিবর্তন আনুন। পানিতে পরিপূর্ণ এমন সব খাবার এই সময়ে গ্রহণ করুন। পর্যাপ্ত ভিটামিন সি এবং জিঙ্ক গ্রহণ করুন এই সময়ে তাহলে শরীরে যথেষ্ট কোলাজিন ও ইলাস্টিন তৈরি হবে। খাবারের তালিকা আরো বেশি বেশি পুষ্টিকর উপাদানে সমৃদ্ধ করুন।

নিজের বানানো কোনো প্যাক ব্যবহার করুন: নিজের ত্বকের প্রয়োজন বুঝে শীতকালে নিজের ত্বকের জন্য নিজেই প্যাক বানানোর চেষ্টা করুন। সেই প্যাকে কিছু প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করুন। যেমন মধু, অ্যাভোকাডো, জোজোবা অয়েল, অলিভ অয়েল, দই, কলা, অ্যালোভেরা ইত্যাদি।

ঘুমানোর আগে ঠিকঠাক নাইট ক্রিম ও আই ক্রিম: আপনার ত্বককে রাতে একটা লম্বা সময় যত্ন করতে পারে নাইট ক্রিম ও আই ক্রিম। নিয়মিত রাতে ত্বকে নাইট ক্রিম ও আইক্রিম লাগাতে কখনোই ভুলবেন না। রাতে ঘুমের মধ্যে এসব উপাদান বেশি বেশি কাজ করে। আইক্রিম সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি ও বায়ু দূষণে ত্বকের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করবে আপনাকে।

Bellow Post-Green View