চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে মাহমুদউল্লাহদের জয়

৪৭ ওভারে ১০৪ রানের সহজ লক্ষ্যে নেমে শুরুতেই বড় ধাক্কা। স্কোরবোর্ডে রান যোগ হওয়ার আগেই সাজঘরে তিন ব্যাটসম্যান! কঠিন সময়ে দলের হাল ধরেন মুমিনুল হক। লো-স্কোরিং ম্যাচে বাঁহাতির ৩৯ রানের ইনিংস দেখায় জয়ের পথ।

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে তামিম ইকবাল একাদশকে ৫ উইকেটে হারিয়ে জয়ে ফিরেছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একাদশ। রোববার টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে নাজমুল হোসেন শান্ত একাদশের বিপক্ষে তারা হেরেছিল ৪ উইকেটে।

বিজ্ঞাপন

তামিম একাদশ: ১০৩/১০ (২৩ ওভার), মাহমুদউল্লাহ একাদশ: ১০৬/৫ (২৭ ওভার)

বিজ্ঞাপন

বৃষ্টির কারণে তিন ওভার কমে আসে ম্যাচের দৈর্ঘ্য। টস হেরে আগে ব্যাট করা তামিমের দল গুটিয়ে যায় ১০৩ রানে। জবাবে রানের খাতা খোলার আগেই আউট হন নাঈম শেখ, লিটন দাস, ইমরুল কায়েস।

মুমিনুলের সঙ্গে ৩৯ রানের জুটি গড়ে শুরুর বিপদ সামাল দেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। সাবধানে পথ হাঁটা মাহমুদউল্লাহ বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামের দারুণ ঘূর্ণিতে বোল্ড হন। ৩৯ বলে ১০ রান করে যান।

বিজ্ঞাপন

মুমিনুল ছিলেন বেশ সাবলীল। শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে পারেননি যদিও। ফেরেন জয় থেকে ২৭ রান দূরে যখন দল। তাইজুলের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন। অফস্টাম্পের বাইরের বল ব্যাটের কানায় লাগিয়ে হন বোল্ড। ৬২ বলে ৩৯ রানের ইনিংসে ছিল ৬টি চারের মার।

পাঁচ উইকেটের জয়ে নুরুল হাসান সোহান রাখেন দারুণ অবদান। ৪১ রানে অপরাজিত থেকে খেলা শেষ করেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। খেলেন মাত্র ৩৮ বল। মারেন ছয়টি চার ও একটি ছক্কা। সাব্বির রহমান অপরাজিত থাকেন ৪ রানে।

শুরুতে ওয়ানডে ম্যাচে টি-টুয়েন্টির রানটাও করতে পারেনি তামিমের দল। প্রথম ম্যাচে হারের পর জয়ের জন্য মরিয়া মাহমুদউল্লাহদের লক্ষ্যটা তাতে থাকে নাগালে।

অধিনায়ক তামিমের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নামা যুবা টাইগার তানজিদ হাসান তামিমের ২৭ রান ইনিংসের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ সংগ্রহ। এনামুল হক বিজয় করেন ২৫ রান।

মেহেদী হাসান ১৯ ও সাইফউদ্দিনের ব্যাট থেকে আসে ১২ রান। বাকি কেউ ছুঁতে পারেননি দুঅঙ্ক।

দুই পেসার রুবেল হোসেন ও সুমন খান নেন ৩টি করে উইকেট। ২টি করে উইকেট নেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ও মেহেদী হাসান মিরাজ।