চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শুধু মাঠের ক্রিকেটেই মনোযোগ টাইগারদের

দুই দলের কাছেই দারুণ গুরুত্বপূর্ণ এক সিরিজ শুরুর আগে- অনুশীলন শুরু করেছে বাংলাদেশ এবং পাকিস্তান ক্রিকেট দল। মিরপুরে কঠোর অনুশীলন করলেও গণমাধ্যমের সাথে কোন কথা বলেনি পাকিস্তান দল। তবে টিম-বাংলাদেশ জানিয়েছে বাইরের সব বিতর্ক ভুলে আপাতত মাঠের ক্রিকেটেই মনোযোগ তাদের।
ভারতের বিপক্ষে বিতর্কিত এক ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ মিশণ শেষ হয়েছিলো বাংলাদেশের। এরপর কেটে গেছে চার সপ্তাহ। আর কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেনি মাশরাফি-সাকিবরা। তবে শুক্রবার পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে।
 হোম অফ ক্রিকেটে রোদ-বৃষ্টি মাথায় নিয়েই কঠোর অনুশীলন করেন টাইগাররা।

আইপিএল ব্যস্ততা শেষ করে দেশে ফিরলেও মঙ্গলবার অনুশীলনে ছিলেন না একমাত্র সাকিব আল হাসান। তবে বাকি টাইগারদের ঘাম ঝড়িয়েছে কোচিং স্টাফ। বিশ্বকাপ সাফল্য এবং হোম কন্ডিশন, সব মিলিয়ে ফেবারিট হিসেবেই সিরিজ শুরু করছে বাংলাদেশ। তবে প্রতিপক্ষের নাম যে পাকিস্তান- তাও ভালোই জানা আছে ম্যানেজমেন্টের।
 
বাংলাদেশ টিম-ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন, ‘পাকিস্তানের সঙ্গে এর আগে আমাদের বেশ কিছু কষ্টের অভিজ্ঞতা রয়েছে। এশিয়া কাপের ফাইনালে ২ রানের আফসোস এবং এবারের বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে হারের স্মৃতি বারবার কষ্ট দেয়। তবে এখন আমাদের দলটা এমন একটা জায়গায় দাঁড়িয়েছে যে আমাদের প্রতিটা ক্রিকেটার জানে আসলে ভুলগুলো কোথায় হচ্ছে বা কি করে তা কাটিয়ে উঠতে হবে। তাই আমি মনে করি সিরিজ শুরুর আগে আমরাই এগিয়ে। আশা করছি ছেলেরা মাঠে তা কাজে লাগাবে।’
 
টপঅর্ডার- বাংলাদেশ দলের অন্যতম এক সমস্যার নাম। প্রায় প্রতি সিরিজ এবং টুর্নামেন্টেই তামিম ইকবালের সঙ্গী হচ্ছেন কেউ না কেউ। কিন্তু সেই তামিমও কি নিজের ছন্দে আছেন?

Advertisement

খালেদ মাহমুদ বলেন, প্রতিটা ক্রিকেটারই একটা বাজে সময় পার করে থাকে। তামিম ইকবালও তা করছে। তবে আমি মনে করি সে কামব্যক করার ক্ষমতা রাখে এবং অতীতে তা করেও দেখিয়েছে। তাকে নিয়ে বেশি কাটাছেড়া না করলেই বরং দলের জন্য ভালো। আর আমি মনে করি যে ছেলে লর্ডসের মাঠে সেঞ্চুরি করে নিজের প্রতিভার প্রমাণ দিয়েছে তার উপড় অন্তত আমার আস্থা আছে। আমার আশা এই সিরিজেই সে ফিরবে নিজের মতো।

বুধবার ফতুল্লায় বিসিবি একদশের সঙ্গে পাকিস্তানের ওয়ার্ম-আপ ম্যাচ। মিরপুরে তাই অনুশীলনে সিরিয়াস ছিলো আজমাল-হাফিজরাও।

ফতুল্লার ম্যাচে বিসিবি একাদশের হয়ে মাঠে নামার কথা বাংলাদেশ জাতীয় দলের অন্তত ৪/৫ জন ক্রিকেটারের।