চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শুটিং শেষের আগেই ‘ওস্তাদ’র ৭০ ভাগ লগ্নি উঠে গেছে!

দাবী ‘ওস্তাদ’ সিনেমার নির্মাতা সাইফ চন্দনের:

সিনেমায় লগ্নিকৃত অর্থ তুলে আনা অনেকটা সোনার হরিণের মতো! প্রতিবছর গড়ে ৪৫-৫০টি সিনেমা মুক্তি পেলেও বড় তারকার সিনেমা ছাড়া লগ্নি ফেরত আসায় অনিশ্চয়তা থাকে। তবে নির্মাতা সাইফ চন্দনের দাবী, তার সিনেমায় মস্ত বড় তারকা না থাকলেও নির্মাণাধীন তৃতীয় সিনেমা ‘ওস্তাদ’ এর শুটিং শেষের আগেই ৭০ ভাগ টাকা তুলে এনেছেন!

‘আব্বাস’-খ্যাত চিত্রপরিচালক সাইফ চন্দন দৃঢ় বিশ্বাস নিয়ে জানান, মুক্তির পর পুরো টাকা তুলে আনতে পারবেন। সঙ্গে লগ্নিকৃত টাকা থেকে লাভও করতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এই পরিচালক চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ‘ওস্তাদ’র শুটিং বাকি মাত্র একদিন। অপেক্ষা করছেন রোশান ও তাসকিনের মাত্র একদিনের সিডিউলের জন্য। পুরোপুরি নিশ্চিত আসন্ন ঈদুল ফিতরে ‘ওস্তাদ’ মুক্তি পাবে।

সাইফ চন্দনের ‘ওস্তাদ’ সিনেমার বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আনিসুর রহমান মিলন, রোশান, মনির হোসেন যুবরাজ, তাসকিন, উষ্ণ হক, রাজ রিপা, শিবা শানু, রাহা তাহনা খান প্রমুখ।

দেশে করোনা সংক্রমণের ঠিক আগে শুরু হয়েছিল ‘ওস্তাদ’ এর শুটিং। টানা ১৮ দিনের সিনেমাটির প্রায় সবকাজ শেষ করেছেন বলে জানান সাইফ চন্দন। তার কথা, করোনা না এলে গত বছরেই ওস্তাদ মুক্তি পেত।

তবে এবার আর মুক্তি নড়চড় হবে হচ্ছে না। সাইফ চন্দন বলেন, ঈদে সিনেমা হলেই ওস্তাদ মুক্তি দেব। জেনেছি বড় বড় তারকাদের সিনেমা মুক্তি পাবে ঈদে। আমার কনটেন্ট বেইজ সিনেমা ‘ওস্তাদ’। ঈদে ২০টি সিনেমা হলে মুক্তি দিতে পারলেও দেব। সিনেমা হল থেকে ব্যবসা হবে, তবে লগ্নিকৃত পুরো টাকা যে সেখান থেকে ফেরত আসবে এই নীতির সঙ্গে আমি একমত নই।

বিজ্ঞাপন

ওস্তাদ সিনেমায় যেটা ব্যয় হয়েছে তার ৭০ ভাগই শুটিং শেষের আগে তুলে আনতে সক্ষম হয়েছি। কিন্তু সেটা কীভাবে? এমন প্রশ্নে সাইফ চন্দন জানান, স্পন্সর, ডিজিটাল, ওটিটি ও টিভি রাইটস থেকে এই টাকাগুলো তুলেছি। আরও কিছু স্পন্সর যুক্ত হবে। এরপর সিনেমা হল থেকেও কিছু ব্যবসা হবে। তবে সঙ্গত কারণে আমি সিনেমা বাজেট জানাতে চাই না।

তিনি বলেন, ‘আব্বাস’ যারা দেখেছেন তাদের কাছে মনে হবেনা কম বাজেটের সিনেমা। অনেকের কাছে শুনি কর্পোরেট থেকে সিনেমা স্পন্সর দিতে চায় না। কিন্তু আমি বিশ্বাসী নই। এটা সুম্পর্কের উপর নির্ভর করে।

তুলনামূলক কম বাজেটে কীভাবে ভালো সিনেমা নির্মাণ সম্ভব জানতে চাইলে সাইফ চন্দন বলেন, আমার কাজের তরিকা ভিন্ন। দেখা যায়, ১০ টায় আর্টিস্ট কলটাইম থাকলে তৈরি হয়ে ক্যামেরার সামনে যেতে ১২ টা বাজে। কিছুক্ষণ শুটিং করলেই মধ্যাহ্নভোজের বিরতি! আমার তরিকা হচ্ছে সকাল ৭ টায় আর্টিস্টকে তৈরি হয়ে ক্যামেরার সামনে আসতেই হবে। পুরান ঢাকায় শুটিং করেছি। শিল্পীদের ওয়ারীতে হোটেলে ১৮ দিন রেখে শুটিং করেয়েছি যাতে বাসায় গেলে আসতে দেরি না করে!

‘ওস্তাদ’ সাইফ চন্দন পরিচালিত তৃতীয় সিনেমা। এর আগে তিনি আরজু-আইরিনকে নিয়ে ‘মেয়েটি আবোল তাবোল ছেলেটি পাগল পাগল’ ও নিরবকে নিয়ে ‘আব্বাস’ সিনেমা বানিয়েছিলেন। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের কথা, ২০১৯ সালে শাকিব খান অভিনীত ও প্রযোজিত সুপারহিট সিনেমা ‘পাসওয়ার্ড’র পর সাইফ চন্দন-নিরবের ‘আব্বাস’ সিনেমাটি নিয়ে আলোচনা হয়েছিল।

‘ওস্তাদ’ সিনেমায় প্রধান চিত্রনাট্যকার ফেরারী ফরহাদ। সহযোগিতা করেন সাইফ চন্দন ও অনিক বিশ্বাস। গানগুলো করেছেন ইমরান, তানজীব সারোয়ার, প্রতিক হাসান, সুবর্ণা।

ঢাকা শহরের একটি মহল্লার নেতৃত্ব পাওয়ার গল্প নিয়ে সিনেমাটির কাহিনি। পরিচালক চন্দন জানান, অ্যাকশন রোমান্টিক ঘরানার সিনেমা। শুটিং হয়েছে পুরান ঢাকার পশ লোকেশনগুলোতে।