চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শীর্ষ তরুণ কৃষি ব্যক্তিত্বের আন্তর্জাতিক তালিকায় বাংলাদেশি মাসরুর

ক্ষুধামুক্ত পৃথিবী গড়ার মূলনীতি নিয়ে কাজ করা আন্তর্জাতিক সংগঠন কর্নেল অ্যালায়েন্স ফর সায়েন্স পাঁচ বছর পূর্তি উপলক্ষে পুরো বিশ্ব থেকে এমন পাঁচ জন তরুণ ব্যক্তিত্বকে স্বীকৃতি দিয়েছে, যারা নিজেদের নিরলস চেষ্টার মধ্য দিয়ে বৈশ্বিক কৃষিতে পরিবর্তন আনছেন।

এই পাঁচজন তরুণ কৃষি ব্যক্তিত্বের একজন বাংলাদেশি, যার নাম তালহা জুবায়ের মাসরুর। বাকি চারজনের একজন ভারতের, একজন ঘানার, একজন কেনিয়ার এবং একজন জিম্বাবুয়ের।

বিজ্ঞাপন

নিজেদের প্রচেষ্টার পাশাপাশি অ্যালায়েন্স ফর সায়েন্স (এএফএস) এই পাঁচজনের পরিশ্রম ও সফলতা তুলে ধরেছে সংগঠনের ওয়েবসাইটে।

ওয়েবসাইটে বুধবার প্রকাশিত ওই নিবন্ধে বলা হয়েছে, কৃষিতে বৈপ্লবিক রূপান্তর আনার মধ্য দিয়ে বিশ্বজুড়ে মানুষের খাদ্যের চাহিদা পূরণের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে এএফএস। এ উদ্দেশে বিভিন্ন কৃষি প্রক্রিয়া ও নিত্যনতুন প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা থেকে শুরু করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কৃষি অনুরাগী ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণ দেয়াসহ নানামুখি কাজ করছে সংগঠনটি।

তালহা জুবায়ের মাসরুর ২০১৯ সালের একজন অ্যালায়েন্স ফর সায়েন্স গ্লোবাল লিডারশিপ ফেলো। বাংলাদেশি এই কৃষি কর্মকর্তার গণমাধ্যম সংশ্লিষ্টতাও ব্যাপক। দেশের কৃষি সম্প্রসারণ ব্যবস্থায় উল্লেখযোগ্য উন্নতির লক্ষ্যে তিনি নিজের দায়িত্বে এনেছেন সৃজনশীল ও বৈচিত্র্যময় পরিবর্তন।

মাসরুরই বাংলাদেশে প্রথম পতঙ্গনিরোধী বিটি বেগুনের প্রচলন ঘটিয়েছেন। নিজে গিয়ে গিয়ে হাজারো কৃষকের হাতে তিনি পৌঁছিয়েছেন এই বেগুনের বীজ। কৃষকদের অনুপ্রাণিত করতে মাসরুর কয়েকশ’ মডেল ক্ষেত তৈরি করিয়েছেন। কৃষকদেরকে নিয়ে অসংখ্য বৈঠক এবং ট্যুরের আয়োজন করেছেন। আর এর সবই তিনি করেছেন ব্যক্তিগত উদ্যোগে।

বিজ্ঞাপন

মাসরুরের এই অক্লান্ত প্রচেষ্টা বাংলাদেশের বিভিন্ন জাতীয় গণমাধ্যমের স্থান পেয়েছে। স্বীকৃতি পেয়ে এএফএস’রও।

এই তরুণ কৃষি উদ্যোক্তা ও গবেষক সফল কৃষক এবং আধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে অনেকগুলো সংক্ষিপ্ত প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করেছেন। বিটি বেগুন নিয়ে তার ডকুমেন্টারি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষের কাছে পৌঁছেছে। দেশের বেশিরভাগ কৃষি কর্মকর্তা বর্তমানে তার প্রকাশিত ভিডিওগুলো কৃষকদের প্রশিক্ষণ দেয়ার কাজে ব্যবহার করছেন।

মাসরুরের ইউটিউব চ্যানেল ‘কৃষি বায়োস্কোপ’ গত দু’বছর ধরে বাংলাদেশের কৃষি জগতে ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছে। কৃষি সংক্রান্ত যে কোনো সমস্যায় তথ্যের আশায় তার এই চ্যানেল ঘাঁটছেন বাংলাদেশিরা, উপকারও পাচ্ছেন। সহজবোধ্য ও তথ্যবহুল ভিডিওর কারণে মাসরুরের চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার বর্তমানে ২ লাখ ১০ হাজারের কিছু বেশি।

কৃষি বায়োস্কোপ-এ প্রায় দেড়শ’ ছোট ছোট ভিডিওচিত্র রয়েছে, যেগুলোর মোট ভিউ ২ কোটি ৩০ লাখের বেশি।

নিজের কাজের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৭ সালে তালহা জুবায়ের মাসরুর খুলনা বিভাগের সবগুলো শাখার কর্মকর্তাদের মধ্যে ‘বেস্ট ইনোভেটিভ অফিসার’ সম্মাননায় ভূষিত হন।

নিজের কাজ সম্পর্কে মাসরুর বলেছেন, বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। এর পেছেনে বাংলাদেশের কৃষকদের ভূমিকা অতুলনীয়। এ দেশের কৃষকদের  প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা কম থাকতে পারে, কিন্তু মাঠপর্যায়ের জ্ঞান তাদের অগাধ।

‘আধুনিক টেকসই প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন নিশ্চিত করতে জনগণকে উৎসাহিত করাই আমার লক্ষ্য,’ বলেন তিনি।

Bellow Post-Green View